কিভাবে নাম্বার দিয়ে পরিচয় বের করা যায়?

কিভাবে নাম্বার দিয়ে পরিচয় বের করা যায়?

অনেক গুলো কারন রয়েছে যে গুলোর কারনে মোবাইল নাম্বার দিয়ে সেই মোবাইলের মালিকের পরিচয় পাওয়ার প্রয়োজন পরে। আজকে আমি আপনাপদের সাথে আলচনা করতে যাচ্ছি কিভাবে নাম্বার দিয়ে পরিচয় বের করা যায়। প্রতিদিন অনেকেই মোবাইল নম্বর দিয়ে কিভাবে একজনকে চিহ্নিত করা করা সেই উপায় খুঁজছেন। প্রতিদিনি অনেক মানুষ গুগলে সার্চ করে কিভাবে নাম্বার দিয়ে পরিচয় বের করা যায়। আজকের এই নিবন্ধটির মাধ্যমে আপনাকে মোবাইল নম্বর দিয়ে যে কোন মানুষের পরিচয় দেখার কৌশল দেখিয়ে দিব।

অনেক সময় আমরা আমাদের ফোনে অজানা নম্বর থেকে কল পাই। এবং এই অপরিচিত নাম্বারটির পিছনে থাকা মানুষের নাম জানা প্রায়ই গুরুত্বপূর্ণ হয়ে দারায়। যদি নির্দিষ্ট সময়ে সঠিক ও সম্পূর্ণ পরিচয় পাওয়া যায়, তাহলে তো হল সোনায় সোহাগা।

তাহলে এখন আসুন কিভাবে এটি করা যায় সে সম্পর্কে কথা বলি। লেখাটি বোঝার সুবিধার জন্য, আমি পুরো লেখাটিকে কয়েকটি ভাগে ভাগ করব। আপনি এখানে দেওয়া টিপস প্রতিটি চেষ্টা করতে পারেন। আশা করি, মোবাইল নাম্বারের পরিচয় পেয়ে যাবেন। এটাকে স্মার্টনেসের বৈশিষ্ট্য বলা যেতে পারে।

কিভাবে নাম্বার দিয়ে পরিচয় বের করা যায়?
কিভাবে নাম্বার দিয়ে পরিচয় বের করা যায়?

মোবাইল নম্বর দিয়ে কাউকে শনাক্ত করার ৩টি প্রধান উপায়

এখানে দেওয়া হল:

  1. মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে খুঁজে বের করা
  2. সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে পরিচয় খুঁজে বের করা
  3. প্রসাশন বা পুলিশ মাধ্যমে পরিচয় খুঁজে বের করা

এই পোস্টে এই তিনটি বিষয়েই বিস্তারিত আলোজনা করবো আশা ৩ নম্বর ট্রিকে যাওয়ার আগেই আপনার কাঙ্খিত মানুটিতেখুজে বের করতে পারবেন। তাহলে চলুন শুরু করা যাক।

মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে পরিচয় খুঁজে বের করা

অনেক গুলে মোবাইল অ্যাপলিকেশন পাওয়া প্রে স্টোরে পটাওয়া গেলে গেলেও ভালো কাজের অ্যাপলিকেশন এবং সবাই ব্যবহার করে এমন অ্যাপলিকেশন Truecaller যার মাধ্যমে পরিচয় বের করা পানির মত সহজ, অপরিচিত নাম্বার আসার সাথে সাথে সেখানে আপনি নাম্বারের মালিকের নাম দেখতে পারবেন। এক্ষেত্রে সবচেয়ে জনপ্রিয় এবং কার্যকরী অ্যাপ হলো এই  ট্রুকলার।

Truecaller ব্যবহার করে নাম্বার দিয়ে পরিচয় করার করবেন যেভাবে?

Truecaller

বর্তমানে প্লে স্টোরে এই টাইপের অনেক অ্যাপস পাওয়া যায়। সেগুলো মোটামুটি কাজ করে, তবে ট্রুকলার সেরা। আমি অবশ্য ডাউনলোড লিঙ্ক দিয়ে দিব।

 

 

 

যেভাবে ব্যবহার করবেন

  1. প্রথমে প্লেস্টোর থেকে এপসটি ডাউলোড করুন।  অথবা এই লিংকে প্রবেশ করুন – play.google.com
  2. এবার এটি আপনার ফোনে ইনস্টোল করুন ।
  3. এপর্যাবে আপনাকে একটি একাউন্ট তৈরী করতে বলা হবে বা আপনার রাম্বার ভেরিফাই করতে বলবে। ভেরিফাই করে নিন।
  4. এবার কিছু পারমিশন চাইবে, বুঝতেই পারছেন কেন চাচ্ছে যেই নাম্বারটির তথ্য জানতে চাচ্ছেন সেটা টাইপ করুন, তারপর SEARCH IN TRUCALLER এ ক্লিক করুন। এবার দেখুর ম্যাজিক!

Truecaller এর আরো অনেক সুবিধা আছে এগুলোর মধ্যে অন্যতম হলো

কোন অজানা নম্বর থেকে কল আসলে তার নাম আপনার ফোনের ডিসপ্লেতে সেব করা ছাড়াই দেখা যাবে। তবে এই ফিচার গুলো ব্যবহার করতে গেলে আপনাকে অবস্যই  ফোন ডেটা বা ওয়াইফাই চালু করতে হবে। এছাড়াও অবাঞ্ছিত বা অজানা ফোন নম্বর চিহ্নিত করতে পারবেন এবং বিরক্তিকর কল বা অজানা নম্বর ব্লক করতে পারবেন।এছাড়াও  আপনার বন্ধুর টাকলার অ্যাকাউন্ট থাকলে বিনামূল্যে কল এবং মেসেজ করতে পারবেন এর জন্য আগেই বললাম আপনাকে ফোন অলওয়েস ডেটা বা ওয়াইফাই চালু করতে হবে।

সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে পরিচয় খুঁজে বের করা

Imo তে নাম্বার ব্যবহার করে পরিচয় বের করা।

Imo

Imo এই অ্যাপটির নাম শোনেননি এমন মানুষ সারা পৃথিবীতে পাওয়া যাবে না।  আর  ইমো ব্যবহার করে না এমন মানুষের সংখ্যা অনেক নগণ্য ।

পরিসংখান বলে Imo শুধু মাত্র ২০২০ সালেই তিন কোটি সত্তর লাখ বাংলাদেশি মানুষ ইমো ইন্সটল করেছে।[২] আশা করি, বুঝতে পারছেন, ইমোর মাধ্যমে অন্তত সাড়ে ৩ কোটি মানুষের পরিচয় জানতে পারবেন।

ক্ষেত্র বিশেষ হয়তো, তাদের ছবিও দেখতে পারবেন। ইমতে নাম্বার এড করা খুবই সহজ। আপনি কাঙিক্ষত ফোন নাম্বারটি নাম ছাড়া সেভ করার সাথে সাথে, তাদের পরিচয় দেখতে পারবেন। অবশ্য যদি তাদের ইমো অ্যাকাউন্ট থাকে তাহলে, তার পরিচয় দেখতে পারবেন।

এটি সবাই ব্যবহার করি তাহলে আর  নতুন করে কিছু বলার নেই। আপনি যে নাম্বারটি  থেকে পরিচয় বের করতে যাচ্ছেন। সেই নাম্বারটি ইমো তে গিয়ে সার্চ করেন। যেহেতু আমরা কম বেশি সবাই এই অ্যাপসটি ব্যবহার করি সেহেতু এই অ্যাপস থেকে কারো পরিচয় বের করা খুবই সহজ।  তারপর ও আমি বলব ইমো থেকে পরিচয় বের করতে পারা ৫০ ভাগ সম্ভাবনা রয়েছে।  কারণ আপনাকে যে ব্যক্তি তার যে নাম্বার দিয়ে বিরক্ত করতেছে সেই নাম্বারটি হয়তোবা তার গোপন নাম্বার হতে পারে সে কারণে আমি বলবো। ইমো থেকে পরিচয় বের করা ফিফটি-ফিফটি চান্স থাকে। তবে আপনি এটিও ব্যবহার করে দেখতে পারেন এছাড়াও নিচে আরও কিছু  অ্যাপ্লিকেশন সম্পর্কে আলোচনা করব।  চা্পইলে আপনি সেগুলো ব্যবহার করে দেখতে পারেন।

আরওপড়ুনঃ মোবাইল ফোনের দাম ২০২১

WhatsApp এ নাম্বার দিয়ে পরিচয় বের করা

একইভাবে আপনি হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহার করেও পরিচয় বের করতে পারবেন। হোয়াটসঅ্যাপ বিষয়ে আর কি বলব বাংলাদেশ করলেও ভারতে বেশি ব্যবহার হয়।  বাংলাদেশ কম বললে ভুল হবে তবে তুলনামূলকভাবে কম ব্যবহার হয়।

কিভাবে বের করবেন ? উত্তর- যে নাম্বার দিয়ে পরিচয় বের করতে যাচ্ছেন।   সে নাম্বারটি নাম ছাড়াই সেভ করেন এবং হোয়াটসঅ্যাপে গিয়ে সার্চ করুন যদি ওই ব্যক্তি হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহার করে থাকে তাহলে তার পরিচয় ছবি সবকিছু এখানেই পেয়ে যাবেন।

Viber Messenger এ নাম্বার দিয়ে পরিচয় বের করা

ভাইবার মেসেঞ্জার ও  এ কিভাবে নাম্বার দিয়ে পরিচয় বের করা যায় প্রথমে নাম্বারটা আপনার ফোনে সেভ করে নিন মনে রাখবেন শেভ করার সময় কোন নাম দেবেন না শুধু নাম্বার সেভ করবেন এবং মেসেঞ্জারে গিয়েছে নাম্বার সার্চ করুন দেখুন আপনার কাংখিত ব্যক্তিকে  ছবি দেখতে পারবেন।

উপরের সবকিছুই ব্যবহার করার পরও যদি আপনি পরিচয় বের করতে না পারেন।   তাহলে প্রশাসন ছাড়া আর কোন উপায় থাকেনা।  তাই যদি কোন ব্যক্তি আপনাকে ফোনে হুমকি প্রদর্শন করে থাকে।  বা এমন কোনো বিষয়ে দাঁড়িয়ে যায় যা আপনার পরিচয় বের করতে না পারলে সংসয় এবং   ভয়ের মধ্যে থাকতে হবে।  তাহলে আর কোন চিন্তাভাবনা না করে। প্রশাসনের সাহায্য নিতে পারেন।  কারণ এছাড়া আর কোন উপায় নেই যার মাধ্যমে আপনি অপরিচিত ব্যক্তির পরিচয় বের করতে পারবেন। যখন অপরিচিত নাম্বার থেকে আপনাকে হুমকি বা বিরক্ত করছে। তখন, পুলিশের নিকট যাওয়াটাই অধিক বুদ্ধিমানের কাজ হবে বলে আমি মনে করি।

প্রসাশন বা পুলিশ মাধ্যমে পরিচয় খুঁজে বের করা

ফোনে হুমকি দিলে করনীয় কি?

অপরাধীরা মোবাইল ফোনের মাধ্যমে অনেক মানুষকে হুমকি দেয়। এমন অনেকেই আছেন যারা এই ধরনের বিরক্তিকর অভিজ্ঞতার সম্মুখীন হয়েছেন। কাউকে হুমকি দেওয়া গুরুতর অপরাধ। এই ধরনের অপরাধীদের আইনের আওতায় এনে শাস্তি দেওয়া যেতে পারে। সেখেত্রে

আবেদনকারীকে বিস্তারিত লিখিতভাবে পুলিশের কাছে আবেদন করতে হবে। আবেদনটি নিকটস্থ থানায় কর্তব্যরত কর্মকর্তার কাছে জমা দিতে হবে। ডিউটিরত অফিসার সেই আবেদন গ্রহণ করবেন এবং একটি সাধারণ ডায়েরি বা জিডি করবেন এবং আবেদনকারীকে একটি জিডি নম্বর প্রদান করবেন। পুলিশ তখন অপরাধীকে ধরতে এবং তাকে আইনের আওতায় এনে শাস্তি দিতে তাদের নিজস্ব পদ্ধতি ব্যবহার করবে।

যদি কোনো নাগরিক হুমকি পায়, সে পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করতে পারে। আবেদনকারীর অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেবে। আমি মনে করি মোবাইল  ফোনে যদি কেউ আপনাকে হুমকি দেয় তাহলে তাকে নিকটস্থ থানায় গিয়ে জিডি করতে হবে জিডি করতে কোন টাকা পয়সা লাগে না।  যা সম্পূর্ণ ফ্রি।

পরিশেষে

পরিশেষে বলতে চাই নাম্বার দিয়ে পরিচয় বের করার সহজ উপায় গুলো আপনাদের সঙ্গে খোলামেলা শেয়ার করেছি নিজে পরীক্ষা করে দেখে এবং অনলাইন থেকে সঠিক উপায় খুঁজে বের করে আপনাদের সামনে তুলে ধরার চেষ্টা করেছি। আশা করছি এই পোস্ট থেকে আপনি পরিচয় বের করার সহজ নিয়ম গুলো বা উপায় গুলো জানতে পেরেছেন।  যদি আমাদের  আর্টিকেলটি ভালো লেগে থাকে তাহলে আপনার বন্ধুদের সঙ্গে শেয়ার করুন।

তো আজকের মত এখানেই আশাকরি আমাদের এই পোস্টটি আপনাদের ভালো লেগেছে।  আমরা সবসময়ই নতুন কোন বিষয় নিয়ে আপনার সাথে শেয়ার করতে চলে আসি।  আপনাদের সার্পোট পেলে আমরা সব সময় আপনাদের পাশে থাকার চেষ্টা করব নতুন কোন বিষয় নিয়ে আলোচনা করব।  জানা বা শেখার জন্য কোন বয়স লাগে না আমরা সবসময় চেষ্টা করি নতুন কিছু শেখার নতুন কিছু জানার।  আপনার কোন বিষয়ে পোস্ট পেতে চান আপনার জানার কোন বিষয় থাকলে আপনারা আমাদের পোষ্টের কমেন্ট বক্সে লিখতে পারেন।  আমরা চেষ্টা করব সেই বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করার।  সবার সুস্বাস্থ্য কামনা করে আজকের আর্টিকেল এখানেই শেষ করলাম সবাই ভাল থাকবেন করনা কালীন সময়ে মাক্স পরিধান করুন সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখুন নিজে সুস্থ থাকুন আপনার আশেপাশের সকল ব্যক্তিকে সুস্থ রাখুন ধন্যবাদ

Leave a Comment