প্লে স্টোর অ্যাপস ডাউনলোড ২০২১

প্লে স্টোর অ্যাপস ডাউনলোড ২০২১

অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল ফোন ব্যবহার করেন আর প্লে স্টোর  অ্যাপ্লিকেশন সম্পর্কে জানেন না এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া যাবে না।  আর প্লে স্টোরে গুরুত্ব এন্ড্রয়েড ফোনে এতটাই বেশি যে,  প্লে স্টোর অ্যাপ্লিকেশন ছাড়া আপনার অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল ফোন কোনটি  বেকার হয়ে পড়বে।  কারণ আপনি তো অ্যান্ড্রয়েড  স্মার্ট ফোন শুধুমাত্র কথা বলার জন্য কিনেন নাই।  অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেম দিয়ে চালিত পৃথিবীতে যত স্মার্টফোন রয়েছে।  কমবেশি সবাই প্লে স্টোরে অ্যাপ্লিকেশন সম্পর্কে অবগত আছেন।  প্লে স্টোর অ্যাপ্লিকেশন মাধ্যমে আপনার ফোনে যত অ্যাপ্লিকেশন রয়েছে – যেমন গেম ইন্টারনেট  ব্রাউজিং করার জন্য ডাউনলোড করার জন্য ব্রাউজার্  থেকে শুরু করে গুগলের এই অপারেটিং সিস্টেম অ্যান্ড্রয়েডের জাবতি অ্যাপস প্লে স্টোর অ্যাপস এর মাধ্যমে ডাউনলোড করতে হয়।

এ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন গুলোতে গুগলের প্লে স্টোর অ্যাপ্লিকেশনটি   ডিফল্ট অ্যাপ্লিকেশন হিসেবে হিসেবে দেওয়া হয়।  এখন অনেকেই ভাবতে পারেন তাহলে আমি কেন আজকের এই আর্টিকেল লিখতে বসলাম।  আপনি জেনে অবাক হবেন যে প্রতিদিন বাংলা ভাষাভাষী মানুষ প্রায় 1000 থেকে পনেরশত মানুষ গুগল সার্চ ইঞ্জিন সার্চ করে থাকেন।  এখান থেকেই বোঝা যায় যে বাংলাদেশ বাংলা ভাষাভাষী মানুষদের মধ্যে অনেকেই প্লে স্টোর থাকার কারণে সমস্যায় পড়েন এবং তা গুগল সার্চ ইঞ্জিনে সার্চ করে থাকেন।  আজকে আমি সেইসব মানুষদের জন্য লিখতে বসলাম।  যারা গুগল সার্চ ইঞ্জিনে প্লে স্টোর অ্যাপস ডাউনলোড করব বলে সার্চ করে থাকেন।  এছাড়াও  চায়না মোবাইল অ্যান্ড্রয়েড ফোন ব্যবহার করেন।  তারা অনেকেই এই সমস্যায় ভোগেন।  কারণ চায়না  ডিফল্ট অ্যাপস হিসেবে গুগল প্লে স্টোর অ্যাপ থাকেনা। তাহলে প্রশ্ন আসতেই পারে

প্লে স্টোর অ্যাপস ডাউনলোড
প্লে স্টোর অ্যাপস ডাউনলোড

প্লে স্টোর অ্যাপ কি করে ডাউনলোড করে ?

এছাড়াও আরও বিভিন্ন কারনে অনেক সময় আমাদের আলাদা ভাবে Google Play Store ডাউনলোড করার প্রয়োজন পরে। আবার যাদের চাইনিজ ফোন ডিফল্ট Google Play Store থাকে না। আর আলদা ভাবে গুগল প্লে স্টোর ইন্সটল করতে হবে কিন্তু এতে করে মাঝে মাঝে আবার Error দেখা যায়। এই সমস্যা গুলোর কারনে আজকের এই আর্টিকেল।  যাই হোক আর কথা না বাড়িয়ে আজকের আর্টিকেলের মূল আলোচনায় যাই তাহলে চলুন দেখে নেই কিভাবে গুগলের এই প্লে স্টোর অ্যাপ টি ডাউনলোড করতে হয়।

প্লে স্টোর অ্যাপস ডাউনলোড কিভাবে করবো

অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোড করার জন্য গুগল প্লে স্টোর ছাড়াও আরো বিভিন্ন অ্যাপ্লিকেশন রয়েছে আপনি চাইলে সেখান থেকেও আপনার কাঙ্খিত অ্যাপ্লিকেশনটি ডাউনলোড করে নিতে পারবেন।  তবে সেগুলো  যেহেতু  সঠিক নিয়ম নয়।  তাই প্লে স্টোর ডাউনলোড করো জরুরী এন্ড্রয়েড মোবাইল ফোনের জন্য।

প্লে স্টোর অ্যাপ কি করে ডাউনলোড করব

গুগল প্লে স্টোর অ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোড করার জন্য আপনি বিভিন্ন ওয়েবসাইট পাবেন। গুগল প্লে স্টোর অ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোড করার জন্য আপনি বিভিন্ন ওয়েবসাইট পাবেন। এগুলোর মধ্যে সবথেকে ভালো আমিও ব্যবহার করি এরকম চারটি ওয়েবসাইট  রয়েছে।  ডাউনলোড করলে কোন প্রকার সমস্যায় পড়তে হবে না।

১। apkpure . com

২। apkmirror . com

৩। androidapksfree. com

৪। http://apps. evozi. com/apk-downloader

apkpure . com  ওয়েবসাইটের মাধ্যমে প্লে স্টোর অ্যাপস ডাউনলোড ডাউনলোড করার পদ্ধতি

১ম ধাপ- ডাউনলোড করার জন্য  প্রথমে এই লিঙ্কে প্রবেশ করুন। এই লিঙ্কে প্রবেশ করলে নতুন ভার্সন পুরনো ভার্সন সবগুলো এখানে  দেখতে পাবেন এখান থেকে সর্বশেষ আপডেট প্লে স্টোর অ্যাপস বেছে নিন।

২য় ধাপ-  এবার এখান থেকে ডাউনলোড সিম্বলে টি তে ক্লিক করেন।  ডাউনলোড শুরু  হয়ে গেছে।  এখন   দুই থেকে চার মিনিট ডাউনলোড হয়ে যাবে। যদি  ‘This type of file can harm your device’ ফোনে এই মেসেজটি আসে তাহলে ওকে প্রেস করুন ডাউনলোড শুরু হয়ে যাবে। ভয়ের কিছু নাই ভাইরাস জনিত কোন সমস্যায় পড়বেন না।

৩য় ধাপ- এ যাবে আপনার কিছুই করতে হবে না অটোমেটিক ইন্সটল শুরু হয়ে যাবে ।  যদি অটোমেটিক ইন্সটল করো না হয়।  তাহলে আপনার মেমোরি কার্ড থেকে ইন্টার্নাল স্তরেজ থেকে ডাউনলোড ফোল্ডার এ গিয়ে অ্যাপাচি ডাবল ক্লিক করে সেই অ্যাপটি ইন্সটল করুন। কাজ শেষ।

এই পদ্ধতিতে তাদের গুগল প্লে স্টোর ডাউনলোড এবং ইন্সটল হয়ে যাবে তাদের পরবর্তী ধাপগুলো অনুসরণ না করলেও চলবে তবে জেনে রাখার জন্য সম্পুর্ন পোস্ট করে নিতে পারেন। এতে করে যদি আপনার মত এমন সমস্যায় আপনার কোন বন্ধু-বান্ধব আত্মীয়-স্বজন পড়ে থাকে। তাহলে তাদেরকে আপনি সাহায্য করতে পারবেন।

তখন অনেকের ফোনে গুগল প্লে স্টোর ইন্সটল করা থাকার শর্তেও সেটি কাজ করে না ।  বা ইরর দেখতে পান তারা কিভাবে কি করবেন আসুন জেনে নেই।

এখন অনেকের ফোনে গুগল প্লে স্টোর ইন্সটল করা থাকার শর্তেও সেটি কাজ করে না ।  বা Error দেখতে পান তারা কিভাবে কি করবেন আসুন জেনে নেই।

প্রথম ধাপঃ শুরুতে আপনার ফোনের সেটিং এ যান।

দ্বিতীয় ধাপঃ এবার  অ্যাপ্লিকেশন  অ্যাপ্লিকেশন বা অ্যাপস অপশন এ প্রবেশ করুন।

তৃতীয় ধাপঃ এবার অ্যাপ্লিকেশন লিস্ট থেকে প্লে স্টোর অ্যাপ খুঁজে বের করুন।

চতুর্থ ধাপঃ গুগল প্লে স্টোর এর উপরে ক্লিক করুন

পঞ্চম ধাপঃ এবার স্টোরিজ অপশনে ক্লিক করুন নিচে যে কোন দুইটি অপশন দেখতে পাবেন একটি হল ক্লিয়ার ডাটা অপটিক কেয়ার কেস।  এখান থেকে আপনি ক্লিয়ার ডাটা এবং ক্যাশ ক্লিক করুন।  এতে করে আপনার জি-মেইল অ্যাকাউন্টে লগ আউট হয়ে যেতে পারে কোন সমস্যা নেই পরবর্তীতে আবার লগইন করে নিয়েন।

আরও পড়ুনঃ কিভাবে ফেসবুক আইডি ফিরে পাব ২০২২

আশা করছি  আমাদের এই আগের থেকে গুগল প্লে স্টোর অ্যাপস এরর সমস্যার সমাধান হয়েছে।

Apk ফরমেটে এবং Abb ফরমেটে

এবার আসি ভিন্ন আলোচনায় আমরা প্লে স্টোর থেকে যে এপপ্স গুলো ডাউনলোড করি সেগুলো apk ফরমেটে থাকে।  কিন্তু গুগল apk ফরম্যাট থেকে ধীরে ধীরে  abb ফরম্যাটে পা বাড়াতে যাচ্ছে। অ্যান্ড্রয়েড ফোনে অ্যাপস ইনস্টল করার পদ্ধতিতে গুগল বড় পরিবর্তন করছে। এই মাস থেকে প্লে স্টোর থেকে AAB ফরম্যাটে যেকোন অ্যাপ ডাউনলোড করা শুরু হবে। ২০১৮ সাল থেকে Android App Bundle (AAB) নিয়ে আসার পরিকল্পনা করছিল Google।  Google অবশেষে প্লে স্টোরকে AAB ফরম্যাটে স্থানান্তর করতে সক্ষম হয়েছে।

AAB কি?

অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেম APK ফাইল থেকে দূরে সরে যাচ্ছে। ধীরে ধীরে সব অ্যাপ APK থেকে AAB ফাইলের মাধ্যমে ইনস্টল করা শুরু করবে। গুগলের ডেভেলপার গাইড বলেছে যে AAB একটি প্রকাশনা বিন্যাস যা অ্যাপ্লিকেশনের সমস্ত সংস্থান এবং সংকলিত কোড ধারণ করে। গুগল প্লেতে সাইন ইন করার প্রক্রিয়া থেকে অনেকটা আলাদা হবে। AAB এর মাধ্যমে যেকোন ডিভাইস থেকে কাস্টম ডাউনলোড করা সম্ভব হবে না অথবা অন্নন্য ওয়েবসাইট থেকে ABB ফাইল ডাউনলোড করা যাবে না। আর এজন্যই গুগল প্লে স্টোর APK থেকে AAB এ চলে যাচ্ছে।

AAB ব্যবহার করে আপনি ডিভাইসের ভাষা এবং কনফিগারেশন অনুযায়ী APK বিতরণ করতে পারবেন। অর্থাৎ, যদি গ্রাহক ইনস্টল বাটনে টোকা দেয়, ফাইলটি টেলর মোডে ডাউনলোড হবে। যদি ডিভাইসের ভাষা ইংরেজী নির্বাচিত হয়, তাহলে আপনাকে কোন অ্যাপে জার্মান বা ফরাসি ভাষার প্যাক ডাউনলোড করতে হবে না। এতে করে ফোনের র‌্যাম বা রোম কম খরচ হবে এছাড়াও, যদি ডিভাইসে 4K সমর্থন না থাকে, তাহলে 4K রিসোর্স প্যাকটি সেই ডিভাইসে ডাউনলোড হবে না। এতে করে ফোন স্লো বা হ্যাং হওয়ার সম্ভবনা কমে যাবে।

কেন AAB এর ব্যবহার শুরু করছে Google?

বিভিন্ন ধরনের কনফিগারেশনের ডিভাইসে Android চলে। আর সব ডিভাইসের ক্ষেত্রে কাস্টোমাইজড অভিজ্ঞতার জন্য AAB ব্যবহার শুরু করছে Google। APK থেকে অপ্রয়োজনীয় রিসোর্স সরানোর কারণেই মূলত ইনস্টলেশন ফাইলের সাইজ প্রায় 15 শতাংশ কমে যাবে। সুতরাং, ফাইলটি ডাউনলোড করতে কম সময় লাগবে।

এছাড়াও, অ্যাপ ডিস্ট্রিবিউশন সার্ভিসে আরও বেশি নিয়ন্ত্রণ পাবে Google। এর ফলে সব থার্ড পার্টি স্টোরকে অ্যাপ ডিস্ট্রিবিউশনের জন্য সব APK ফাইলকে AAB-এ কনভার্ট করতে হবে। এক কথায় AAB ফাইল হল কাস্টোমাইজড APK ফাইল, যেখানে কোনও অপ্রয়োজনীয় রিসোর্স উপস্থিত থাকবে না।

AAB থেকে APK কনভার্ট করবেন কী ভাবে?

ডেভেলপাররা Play Store-এ AAB আপলোড শুরু করলে বান্ডেল টুল ব্যবহার করে তা APK কনভার্ট করে ডিভাইসে পাঠাবে Google। সেই APK-তে সব ধরনের রিসোর্স উপস্থিত থাকবে না। যে ডিভাইসে ডাউনলোড করা হচ্ছে, শুধুমাত্র সেই ডিভাইসের প্রয়োজনীয় রিসোর্স উপস্থিত থাকবে। তবে, ডেভেলপাররা চাইলে নিজেদের অ্যাপের ইউনিভার্সাল APK তৈরি করতে পারবেন।

আরও পড়ুনঃ মোবাইল হ্যাং হলে করনীয় ২০২১

পরিশেষে

অনেক কথা হল আশা করি  এই আর্টিকেলের মাধ্যমে আপনি অনেক কিছু জানতে পারলেন। আমরা সবসময় চেষ্টা করি সাহায্য bd.com ওয়েবসাইটে আমাদের লেখনীর মাধ্যমে আপনাদের সাহায্য করার।  কতটুকু তা জানি না তবে সবসময় চেষ্টা করি নতুন কোন সমস্যার সমাধান খোঁজার। আজকের মত এখানেই কথা হবে আগামী কোন আর্টিকেলে।  নতুন কোনো সমস্যার সমাধান নিয়ে।  তাদের ভাল থাকুন সুস্থ থাকুন করোনাকালীন সময়ে মাক্স পরিধান করুন সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখুন।  নিজে সুস্থ থাকুন আশপাশের মানুষদের সুস্থ রাখুন । ধন্যবাদ

2 thoughts on “প্লে স্টোর অ্যাপস ডাউনলোড ২০২১”

Leave a Comment