জমি বেদখল হলে করনীয় কি

জমি বেদখল হলে করনীয় কি

জমি বেদখল হলে করনীয় কি? বাংলাদেশের বিচার আদালতে যত মামলা দায়ের হচ্ছে আর বিচারাধী রয়েছে তার একটা বড় অংশই জমি …

Read more

জাল দলিল চেনার উপায়

জাল দলিল চেনার উপায়

জাল দলিল চেনার উপায় আজকে আমরা যে বিষয়টা নিয়ে আলোচনা করতে যাচ্ছি তা আপনারা পোস্টের নাম শিরোনাম দেখেই বুঝতে পেরেছেন …

Read more

কিভাবে অনলাইনে জমির খতিয়ান/পর্চা পাবেন

কিভাবে অনলাইনে জমির খতিয়ান/পর্চা পাবেন

অনলাইনে জমির খতিয়ান/পর্চা

বর্তমানে এই প্রযুক্তির ডিজিটাল যুগে অনলাইনেই যেহেতু সব কিছু হচ্ছে তাহলে জমি কাগজ পত্রের জন্য মানুষ কেন এই ছুটো ছুটি করবে তাই নয় কি? এই ডিজিটাল যুগে আপনি হাতের কাছেই সব জিনিস পাবেন। বিশেষজ্ঞদের মতে এই যুগ মানুষকে দিন দিন অলস করে দিচ্ছে। আসলে প্রযুক্তির ব্যবহার আমাদের দৈনন্দিন জীবনকে আরও সহজ এবং আরামদায়ক করে তুলেছে। এখন ঘরে বসে আপনি যা খুশি তা করতে পারছেন। তাই আজ এই পোস্টে কিভাবে অনলাইনে জমির খতিয়ান/পর্চা পাবেন যে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করতে যাচ্ছি তা হলো আপনাদের জমির খতিয়ান বা কাগজপত্র। এখন যে কেউ নিজ জায়গা থেকে ব্যক্তিগত বা বেসরকারী জমি কিনতে বা বিক্রি করতে চাইলে তিনি অনলাইনে মাধ্যমে সহজেই বিভিন্ন রেকর্ড সংগ্রহ করতে পারবেন।

কিভাবে অনলাইনে জমির খতিয়ান বা পর্চা পাবেন ?

 যে কোনও জমির খতিয়ান বা পর্চা এখন তাৎক্ষণিক ভাবে অনলাইনে পাওয়া যাবে। জমির মালিকানা যাচাইকরণ বা অনলাইনে জমির খতিয়ান বা পর্চা বা জমির কাগজ পত্র ডাউনলোড বিষয়ে লেখা আমাদের আজকের এই পো্টে আপনাকে স্বাগতম।

আজ আমরা দেখব কীভাবে ঘরে বসে কম্পিউটার বা স্মার্টফোন থেকে জমির মালিকানা যাচাই বা জমির খতিয়ান অথবা পর্চা বা ‘জমির কাগজ পত্র অনলাইনে পাওয়া যায়’।

পোস্টটি শেষ পর্যন্ত পড়লে আপনি আপনার বাবার নামে, আপনার দাদার নামে, আপনার নামে অথবা যে কারো নামে কত টুকু জমি আছে আপনি তা সহজে জানতে পারবেন। আশা করি আপনাকে আর কোন জামেলায় পড়তে হবে না এই পোষ্টে আপনার জমি সংক্রান্ত সমস্যার সমাধান হবে যাবে। শুরু তে জেনে নেই –

আরও পড়ুন

 অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন যাচাই ২০২১
 নতুন ভোটার আইডি কার্ড করার নিয়ম
 দুই শব্দের মেয়ে শিশুর সুন্দর নাম

খতিয়ান কী?

উত্তর: যে কাগজে জমির সমস্ত বিবরণ লিপিবদ্ধ করা হয় তাকে খতিয়ান বলে। খতিয়ান একটি আরবি শব্দ।

জমির পর্চার ছবি

বিস্তারিত বলতে গেলে বলতে হয় জমির মালিকানা সম্পর্কে জমি জরিপের সময় যে বিবরণ বা কাগজ প্রস্তুত করা হয় তাকে “খতিয়ান” বলা হয়। “খতিয়ান” মৌজার উপর ভিত্তি করে প্রস্তুত করা হয়। আমাদের দেশে  সিএস, আরএস, এস.এ এবং বিএস, বা সিটি জরিপ এখন পর্যন্ত রয়েছে। এই জরিপ গুলো শেষে জমির মালিকের তথ্য প্রস্তুত করা হয়েছিল যা “খতিয়ান” নামে পরিচিত। যেমনঃ BS খতিয়ান, SA খতিয়ান, CS খতিয়ান, RS খতিয়ান।

খতিয়ান কত প্রকার কি কি?

জমির খতিয়ান তথ্য

১। ‘সি. এস খতিয়ান’ – ‘সি. এস জরিপ’ – ‘Cadestral survey’
২। ‘এস. এ. খতিয়ান’ – ‘এস. এ. জরিপ’ – ‘State Acquisition Survey’
৩। ‘আর. এস. খতিয়ান’ – ‘আর. এস জরিপ’ – ‘Revisional Survey’
৪। ‘বি.এস খতিয়ান’ – ‘বি. এস. জরিপ’ – ‘Bangladesh Survey’

সি. এস. খতিয়ান বা সি. এস জরিপ বা ‘Cadestral survey’ কি ?

ব্রিটিশ সরকারের তত্ত্বাবধানে ১৮৮০ থেকে ১৯৪০ সাল পর্যন্ত বাংলায় একটি ভুমি জরিপ চালানো হয়েছিল। সমীক্ষায় বলা হয়েছে জরিপটি কক্সবাজারের রামু থানা থেকে শুরু করে দিনাজপুরে শেষ করা হয়েছিল। যদিও বর্তমান পর্যন্ত প্রথম এই জরিপটিকে নির্ভুল হিসাবে বিবেচিত হয়। এই জরিপের মাধ্যমে তৈরি ‘সিএস ম্যাপ বা সি.এস নকশা’ । এবং উক্ত জরিপ হেতে তৈরী খতিয়ানকে সি.এস. খতিয়ান বলা হয়। অনেকে আবার এই খতিয়ানকে  ব্রিটিশ খতিয়ান বা চল্লিশের খতিয়ান বলে। এখনও এই খতিয়ানকে মামলা মোকদ্দমা বা বিরোধ নিষ্পত্তি করার ভিত্তি হিসাবে ব্যবহৃত হয়। সুতারাং সি.এস খতিয়ান বা নকশা এখনও বাংলাদেশের একটি গুরুত্বপূর্ণ দলিল হিসাবে স্বীকৃত। আপনি যদি সি.এস খতিয়ান চেব বা ডাউনলোড করতে চান তাহলে পোস্ট শেষ পর্যন্ত পড়ুন।

Read more