নতুন ভোটার আইডি কার্ড করার নিয়ম

নতুন ভোটার আইডি কার্ড করার নিয়ম

নতুন ভোটার আইডি কার্ড করার নিয়ম

বাংলাদেশের সকল নাগরিকে এদেশের নাগরিক হিসাবে প্রমান করা জন্য এক মাধ্যম হল পরিচয়পত্র বা ভোটার আইডি কার্ড যা সংক্ষেপে জাতীয় পরিচয়পত্র বা এনআইডি নামে পরিচিত। এটি দেশের অভ্যন্তরে নিজের পরিচয় প্রমাণ করার প্রধান মাধ্যম। একজন মানুষের ১৮ বছর বয়স পূর্ন হওয়ার সাথে সাথে আইডি কার্ড জাতীয় পরিচয়পত্রে নাম অন্তরভুক্ত করা নিয়ম রয়েছে। শুধু তাই না বাংলাদেশে সবার জন্য ভোটার আইডি থাকা বাধ্যতামূলক করেছে বাংলাদেশ সরকার।

সুতরাং ভোটারদের মধ্যে নিজেকে অন্তর্ভুক্ত করা বাধ্যতামূলক। আর এই আইডি কার্ড বা জাতীয় পরিচয়পত্র ইলেকশন কমিশন বাংলাদেশ কার্ড ইস্যু করা সহ সমস্ত কাজ নিয়ন্ত্রণ করে। নতুন ভোটার কীভাবে হবে বা ভোটার হতে কী লাগে বা এনআইডি পাওয়ার প্রক্রিয়া কী তা নিয়ে আজকে আমাদের এই পোস্টটিতে বিস্তারিত আলোচনা করব। তাই আমি আশা করি আপনারা সম্পুর্ন পোস্টটি ভালো ভাবে পড়লে আইডি কার্ড বা জাতীয় পরিচয়পত্র সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারবেন।

নতুন ভোটার নিবন্ধনের নিয়ম

নতুনভোটারনিবন্ধন ২০২১সময়সূচী

নতুন ভোটার সাধারণত তিন বছর পর পর একটি শুমারি মাধ্যমে নিবন্ধিত হয়ে থাকে । এ সময় “নির্বাচন কমিশন বাংলাদেশ” এর  লোকজন ঘরে ঘরে গিয়ে নতুন ভোটার হওয়ার যোগ্য ব্যক্তিদের তালিকা তৈরী নিবন্ধন করে দেয় এবং নিদিষ্ট সময় পর ইউনিয়ন ওয়ার্ডের সবাইকে এক জায়গায় করে ছবি তোলা হয়। পুরো থানা বা উপজেলার একই ভাবে সবার ছবি তোলার পরে কিছু দিনের মধ্যে ইউনিয়নের পরিষদের মাধ্যমে আইডি কার্ড বিতরন করা হয়।

বিভিন্ন কারনে আদম শুমারিতে যারা বাদ পড়ে যায়  তারাও যাতে ভোটার হতে সে কারনে অনলাইনে আবেদন করারও সুযোগ রয়েছে। তারাও অনলাইনের কোন দোকানে বা নিজেই সঠিক ভাবে আবেদন ফরম পূরণের মাধ্যমে নতুন ভোটার হতে পারবেন।  নির্বাচন কমিশন বাংলাদেশ প্রতি বছরের জানুয়ারি মাসের  শেষে নতুন ভোটার তালিকা প্রকাশ করে থাকে।

অনলাইন ভোটার নিবন্ধন একটি চলমান প্রক্রিয়া। ১৮ বছর বয়স পূর্ন হলে যে কেউ  নতুন ভোটার নিবন্ধন করতে পারেন। আর ১৮ বছর বয়স হলে অবশ্যই অনলাইন ভোটার নিবন্ধন করা উচিৎ কারণ আপনি যদি সময় মতো ভোটার হতে না পারেন তবে আপনাকে পরে অনেক হয়রানি শিকার হতে হবে। এছাড়া আপনি অনেক অফিসিয়াল কাজ যেমন: জমি ক্রয় বিক্রয়, চাকুরী বাকরির আবেদন ইত্যাদি করতে পারবেন না। তাই সময় মত নতুন ভোটার নিবন্ধন করাটাই বুদ্ধিমানের কাজ বলে আমি মনে করি।

নতুন ভোটার আইডি কার্ড করার নিয়ম ২০২১

এখন আপনি খুব সহজেই অনলাইনে ভোটার হওয়ার জন্য আবেদন করতে পারবেন। অনলাইনে আবেদন পূর্বে প্রয়োজনী কিছু কাগজ স্কান করে নিন যা আপনাকে ফরম পূরণ শেষে আপলোড করতে হবে। উদাহরণস্বরূপ, পিতামাতার ভোটার আইডি কার্ড, আপনার জন্ম নিবন্ধন কার্ড, সকল শিক্ষাগত সনদ, রক্তের গ্রুপ।

কারণ আপনি যদি আবেদনের সময় সঠিক তথ্য সরবরাহ না করেন তবে আপনার আবেদনটি বাতিল হয়ে যেতে পারে। এমনকি ভূল তথ্য দেওয়ার কারনে জরিমানাও হতে পারে। শুধু তাই না আপনি পরে ভোটার হওয়ার সুযোগ নাও পেতে পারেন। সুতরাং আবেদন করার সময় সঠিক তথ্য সরবরাহ করুন।

আপনার কাছে কম্পিউটার বা ল্যাপটপ না থাকলেও আপনি আপনার হাতে স্মার্টফোনটি দিয়ে অনলাইনে ভোটার নিবন্ধন আবেদন করতে পারেন। তবে আমি মনে করি আপনি অনলাইন ফরম পূরণে নতুন হলে নিজে না করাই ভালো।

সব সময় মনে রাখবেন কোন ভাবেই আবেদন করার সময় ভূল তথ্য সরবরাহ করা যাবে না।

আরও পড়ুন

 

ফেসবুক থেকে ভিডিও ডাউনলোড

অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন যাচাই ২০২১

ইসবগুলের ভুষি উপকারীতা ও অপকারীতা কি?

Read more