ফেসবুকে কিভাবে টাকা আয় করা যায়

ফেসবুকে কিভাবে টাকা আয় করা যায়: বর্তমান সময়ে ফেসবুক বিশ্বের বৃহত্তম সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম। কম বেশি সবাই জানেন যে আপনি ইউটিউব থেকে একটি চ্যানেল তৈরি করে অর্থ উপার্জন করতে যায়। এখান প্রশ্ন হল কিভাবে ফেসবুকে অর্থ উপার্জন করা যায়?

ফেসবুকে কিভাবে টাকা আয় করা যায়

হ্যাঁ, এখন ফেসবুক থেকে টাকা আয় করা সম্ভব। ফেসবুক কর্তৃপক্ষ কয়েক বছর আগে ফেসবুক থেকে অর্থ উপার্জনের সুযোগ চালু করেছে। আপনি চাইলে এখনই ফেসবুক থেকে আয় করতে পারেন। আমাদের আজকের আর্টিকেলে আমরা আলোচনা করব কিভাবে ফেসবুক ব্যবহার করে অর্থ উপার্জন করা যায়।

আমরা সবাই সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করি। আমরা কেউ কেউ ইউটিউব ভিডিও দেখছি, কেউ ফেসবুকে খবর পড়ছি, কেউ কেউ ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করেছি। এক কথায় আমরা সোশ্যাল মিডিয়া প্রায় সব সময়ই ব্যবহার করছি।

বর্তমান যুগে শিশু থেকে শুরু করে যুবক -যুবতী, বৃদ্ধ সবাই কমবেশি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের সাথে যুক্ত। আর যখন এত মানুষ ফেসবুকের সাথে সংযুক্ত থাকে। তখন ফেসবুক কর্তৃপক্ষের দায়িত্ব ছিল ফেসবুক থেকে আয় প্রদান করা।

ফেসবুকে কিভাবে টাকা আয় করা যায়
ফেসবুকে কিভাবে টাকা আয় করা যায়

ফেসবুকে টাকা আয় করার উপায়

ফেসবুক থেকে অর্থ উপার্জনের অনেক উপায় আছে। আপনি চেষ্টা করলে আপনার হাতে থাকা মোবাইল ফোনের মাধ্যমে ফেসবুক থেকে অর্থ উপার্জন করতে পারবেন। আজকের পোস্টে আমরা পয়েন্ট আকারে ফেসবুক থেকে অর্থ উপার্জনের উপায় নিয়ে আলোচনা করব। আপনার যদি ফেসবুক থেকে আয় সম্পর্কে কোন ধারণা না থাকে, তাহলে আজকের পোস্ট পড়ার পর আপনি বিস্তারিত জানতে পারবেন।

অবশেষে, ফেসবুক কর্তৃপক্ষ ফেসবুক থেকে অর্থ উপার্জনের বিভিন্ন উপায় তৈরি করেছে। তাহলে চলুন ফেসবুক থেকে অর্থ উপার্জনের উপায় সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক

ফেসবুক থেকে অর্থ উপার্জনের বিভিন্ন উপায় রয়েছে। এখন আমি ধাপে ধাপে সেই উপায়গুলি ব্যাখ্যা করব এবং আপনাকে একটি সম্পূর্ণ নির্দেশিকা দেব যাতে আপনিও ফেসবুক থেকে অর্থ উপার্জন করতে পারেন।

কিভাবে ফেসবুক পেজ থেকে অর্থ উপার্জন করা যায়

ফেসবুক কর্তৃপক্ষ এখন ফেসবুক পেজ থেকে অর্থ উপার্জনের ব্যবস্থা করেছে। আপনি চাইলে এখন আপনার ফেসবুক পেজ থেকে টাকা আয় করতে আপনি ফেসবুক পেজ মাধ্যমে ফেসবুক থেকে দীর্ঘদিন অর্থাৎ আজীবন আয় করতে পারেন।

আপনাকে প্রথমে একটি ফেসবুক পেজ খুলতে হবে। আপনার মনে প্রশ্ন আসতে পারে, কিভাবে পেজ খুলবেন? একটি পৃষ্ঠা খোলার জন্য কিছু নির্দিষ্ট নির্দেশিকা রয়েছে যা আপনাকে অবশ্যই অনুসরণ করতে হবে।

কিভাবে একটি ফেশবুক পেজ ক্রিয়েট করবেন দেখুন:

কিভাবে ফেসবুক পেজ খুলবেন

আসুন জেনে নেই কিভাবে একটি ফেসবুক ফ্যানপেজ তৈরি করবেন। মনে রাখবেন একটি ফ্যান পেজ তৈরি করতে আপনার অবশ্যই একটি ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থাকতে হবে।

কিভাবে ফেসবুক পেজ খুলবেন

১। আপনাকে প্রথমে আপনার ব্যক্তিগত ফেসবুক অ্যাকাউন্ট টিতে লগইন করতে হবে এবং ক্রিয়েট অপশন বা পেজ অপশনে (মোবাইল অ্যাপস এ পতাকার মত দেখতে) ক্লিক করতে হবে।

২। ক্রিয়েট অপশন সিলেক্ট করলে একটি পেজ আসবে। সেখানে আপনাকে পেজ অপশন নামে একটি অপশন সিলেক্ট করতে হবে। মোবাইল হলে Get Started বাটনে ক্লিক করতে হবে।

৩। Page Option থেকে আপনাকে Business বা Brand অপশনে ক্লিক করতে হবে।

৪। সেখানে আপনাকে আপনার ফ্যানপেজের জন্য একটি নাম নির্বাচন করতে হবে এবং নির্বাচন করা পরে Next বাটনে ক্লিক করতে হবে।

৫। নাম নির্বাচন করার পর, আপনাকে একটি প্রোফাইলের জন্য ছবি নির্বাচন করতে হবে। মনে রাখবেন, প্রোফাইল পিকচারটি আপনি যে ধরনের ব্যবসা করতে যাচ্ছেন তার উপর কেন্দ্র করে হওয়া উচিত।

৬। প্রোফাইল পিকচারের পর আপনাকে সেই পেজের জন্য একটি কভার ইমেজ সিলেক্ট করতে হবে যার মাধ্যমে আপনার ফেসবুক পেজ তৈরির কাজ সম্পন্ন হবে।
এখানে আপনার একটি পেজ তৈরী হয়ে গেলো।

ফেসবুকে বিজ্ঞাপনী ভিডিও দিয়ে টাকা আয় করা যায়

ফেসবুক পেজ খোলার পরে আপনাকে এখনে যে কোন বিষয়ে নিয়মিত সেই ফেসবুক পেজ ভিডিও চিত্র পোস্ট করতে হবে। আপনার পোস্টগুলি আপনার বন্ধুদের এবং পরিবারের সাথে শেয়ার করতে থাকুন।

ধীরে ধীরে যখন আপনার পেজের লাইক এবং ফলোয়ারের সংখ্যা বেড়ে যাবে তখন আপনি আপনার পেজে ভিডিও মনিটাইজেশনের মাধ্যমে অর্থ উপার্জন করতে পারেন।

এছাড়াও আপনি আপনার ফেসবুক পেজে যে কন্টেন্টটি নিয়মিত দিচ্ছেন তার সাথে সম্পর্কিত অনেক কোম্পানি থাকবে, আপনি সেখান থেকে চাইলে স্পনসরশিপ দিয়ে তাদের পণ্যের প্রচার করতে পারেন।

তাই আপনার ফেসবুক পেজে নিদিষ্ট কোন বিষয়বস্তু নিয়ে ভিডিও তৈরী করবেন। একটি সম্পূর্ণ পরিকল্পনা করুন যাতে আপনি সর্বদা একটি নির্দিষ্ট বিষয়ে নিয়মিত ভিডিও তৈরী করতে পারেন ।

ফেসবুক মার্কেটপ্লেস থেকে অর্থ উপার্জন করুন

প্রকৃতপক্ষে, এটি এমন একটি পরিষেবা যার মাধ্যমে আপনি আপনার নিজের বা অন্য কারো নতুন-পুরাতন পণ্য বিক্রি করে অর্থ উপার্জন করতে পারবেন।

আপনি প্লে স্টোরের মাধ্যমে অনেক রিসেলিং অ্যাপ পাবেন। যেমন- Messho, Shop101, Glowroad, আপনাকে প্রথমে এই সব অ্যাপ ইন্সটল করতে হবে। তারপর এখানে রেজিস্ট্রেশন করার পর ব্যাংক একাউন্টের তথ্য দিয়ে একটি একাউন্ট তৈরী করে নিতে হবে।

এই অ্যাপ গুলোতে আপনি বিভিন্ন ধরনের কোম্পানির বিভিন্ন পণ্য পাবেন। আপনি সেই পণ্যের ছবি ডাউনলোড করে সেই ছবিগুলো ফেসবুক মার্কেটপ্লেসে আপলোড করে সেখানে আপনার মূল্য নির্ধারন করে মানুষের কাছে বিক্রি করে আয় করতে পারেন।

যেমন ধরুন আপনি ১৫০ টাকা দিয়ে সেই অ্যাপ থেকে একটি টি-শার্ট কিনে আপনার ফেশবুক পেজে টি-শার্টি 250 টাকা মূল্য নির্ধারন করে দিলেন।

মানুষ যখন সেটি কিনতে চা্ইবে তখন আপনি আপনার কেনা ১৫০ টাকার পন্যটির ডেলিভারি সয় আপনার নির্ধারন করা মূল্য বসিয়ে দিয়ে আপনার কাষ্টমারের ঠিকানায় পাঠিয়ে দেন তাহলে সেখান থেকে অতিরিক্ত টাকা আপনার ব্যাংক একাউন্টে চলে যাবে। অর্থাৎ যদি এই পণ্যটি বিক্রি করতে পারেন তাহলে আপনি 100 টাকা লাভ পাবেন।

এইভাবে আপনি আপনার ফেসবুক মার্কেটপ্লেসে অনেক প্রডাক্টের ছবির তালিকা করে করতে পারেন। এখন যখন একজন ব্যক্তি আপনাকে সেই পণ্যটি কেনার জন্য মেসেজ করবে, আপনি সেই অ্যাপে তার ঠিকানা রাখবেন এবং সেখানে আপনার মূল্য নির্ধারণ করবেন।

কোম্পানি তখন আপনার নামে পণ্যটি আপনার দেওয়া ঠিকানায় পৌঁছে দেবে। এবং পণ্য বিক্রির পরে, কিছু কমিশন আপনার ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে যাবে। সুতরাং এভাবে আপনি ফেসবুক মার্কেটপ্লেসে পণ্য বিক্রি করে আয় করতে পারেন।

ফেসবুকে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এর মাধ্যমে আয়

আপনি চাইলে আপনার ফেসবুক পেজ বা গ্রুপে এফিলিয়েট মার্কেটিং করে অর্থ উপার্জন করতে পারেন। যদি আপনি না জানেন যে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং কি, তাহলে আমি বলি অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং হচ্ছে কোন কোম্পানি বা প্রতিষ্ঠানের পণ্য বিক্রি করা।

আপনি যদি তাদের পণ্য বিক্রি করেন তবে তারা আপনাকে এই পণ্য বিক্রির জন্য কিছু কমিশন দেবে এবং একে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং বলা হয়। একথায় উপরে যেই বিষয়ে আলোচনা করলাম সেটাই অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং ।

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এর জন্য অনেক ভালো ওয়েবসাইট আছে। আপনি চাইলে এই ওয়েবসাইট গুলোর অ্যাফিলিয়েট প্রোগ্রামে যোগ দিতে পারেন। অ্যামাজন, আলিবাবা, ফ্লিপকার্ট আপনি এই ওয়েবসাইট গুলিতে অ্যাফিলিয়েট প্রোগ্রামে যোগ দিয়ে অর্থ উপার্জন করতে পারেন।

আর যদি আপনার পেজের কন্টেন্ট টেক রিলেটেড হয়, তাহলে ফেসবুক পেজ থেকে বিপুল পরিমাণ অর্থ উপার্জন করতে পারেন। কারন টেক রিলেটেড প্রডাক্টে সব থেকে বেশি লাভ হয় ।

আরও পড়ুনঃ কিভাবে ফেসবুকে প্রতিদিন 500 আয় করা যায়

ফেসবুকে ভিডিও থেকে আয়

আপনি ভিডিও তৈরি করে এবং ফেসবুকে লাইভ করে অর্থ উপার্জন করতে পারেন। ফেসবুকে অর্থ উপার্জনের এই সুবিধাকে বলা হয় ফেসবুক অ্যাডস ব্রেক।

শুনে কি অবাক হচ্ছেন? আশ্চর্যের কিছু নেই. ইউটিউবের মতো ফেসবুকও এখন ভিডিও আপলোড করে অর্থ উপার্জন করতে পারবেন। যদি আপনি আপনার ফেসবুক ভিডিও মনিটাইজ করতে পারেন। ইউটিউবের মত ফেসবুক থেকে অর্থ উপার্জন করতে পারেন। যেমন ইউটিউবে গুগল অ্যাডসেন্স ব্যবহার করে ভিডিও মনিটাইজ করে অর্থ উপার্জন করা যায়।

তেমনি আপনি ফেসবুকে অ্যাড চয়েসের মাধ্যমে কাজ করে অর্থ উপার্জন করতে পারেন। ইউটিউবের মত এখানে ফেসবুক বিজ্ঞাপন আপনার ভিডিওতে দেখাবে, আপনাকে সেই বিজ্ঞাপন থেকে আয়ের কিছু অংশ দেবে। এই সুবিধা পেতে বেশ কিছু শর্ত পূরণ করতে হবে। প্রথমে আপনার পেজ তাদের মনোনীত করতে হবে। এক্ষেত্রে শর্তগুলো হলো: –

১। আপনার ফেসবুক পেজে 10,000 ফলোয়ার থাকতে হবে।
২। আপনার পোস্ট / ভিডিওটি গত 60 দিনে 15,000 মানুষের কাছে পৌঁছাতে হবে।
৩। আপনার ফেসবুক পেজে ভিডিওগুলি গত 60 দিনে অন্তত 30,000 ভিউ থাকতে হবে এবং প্রতিটি ভিউ কমপক্ষে 1 মিনিট দীর্ঘ হতে হবে। উপরন্তু, ৪। আপনার প্রতিটি ভিডিও কমপক্ষে 3 মিনিট দীর্ঘ হতে হবে। কারণ ফেসবুক 3 মিনিটের ছোট ভিডিওতে বিজ্ঞাপন দেখায় না।
৫। আপনার বয়স কমপক্ষে 18 বছর হতে হবে।
৬। আপনাকে ফেসবুকের পার্টনার মনিটাইজেশন পলিসি মেনে ভিডিও তৈরি করতে হবে।

আরও পড়ুন: ভিডিও তৈরি করার সফটওয়্যার

ফেসবুকে লাইভ করে অর্থ উপার্জন

আপনি লাইভ ভিডিও তৈরি করে অর্থ উপার্জন করতে পারেন। এই ক্ষেত্রে, লাইভ ভিডিওর শর্তগুলি হল: –
ভিডিও 4 মিনিটের বেশি হতে হবে।
কমপক্ষে 30 জনকে অবশ্যই ভিডিওটি দেখতে হবে।

কিভাবে ফেসবুক গ্রুপ থেকে টাকা ইনকাম করবেন

আপনি যদি ফেসবুক গ্রুপ মার্কেটিং ভালো করে বুঝেন তাহলে আপনি অনেক টাকা আয় করতে পারবেন থেকে। মনে রাখবেন, ফেসবুক পেজ এক উপায় যোগাযোগ। অর্থাৎ, এখানে শুধু আপনি কথা বলবেন এবং আপনার শ্রোতারা আপনার কথা শুনবে, তাদের বলার উপায় থাকে  না।

অন্যদিকে ফেসবুক গ্রুপ দ্বিমুখী যোগাযোগ, এটি একটি সম্প্রদায়। অর্থাৎ আপনি এখানে কথা বলবেন এবং আপনার শ্রোতারা কথা বলতে পারবেন। আপনি যদি আপনার গ্রুপে ভাল করেন তবে আপনার শ্রোতা আপনার ব্যবসা বাজারজাত করবে। এটি ফেসবুকে মার্কেটিং করার একটি খাঁটি উপায়।

যদি আপনি একটি ফেসবুক গ্রুপ তৈরি করতে পারেন, তাহলে আপনি অর্থ উপার্জনের অসংখ্য উপায় খুঁজে পাবেন। সেক্ষেত্রে আপনাকে সবসময় আপনার গ্রুপের শ্রোতাদের বিভিন্ন কার্যক্রম বা পোস্টের মাধ্যমে একটিভ রাখতে হবে।

ফেসবুক বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে আয়

আপনি যদি ফেসবুকে কিছু টাকা বিনিয়োগ করতে পারেন, তাহলে আপনি ফেসবুক এড ব্যবহার করে খুব সহজে এবং দ্রুত ফেসবুক থেকে অর্থ উপার্জন করতে পারেন। এই মাধ্যমটি আসলে ফ্রি নয় কিন্তু আপনি যদি একটু চতুরতার সাথে কাজ করতে পারেন তাহলে আপনি এখানে যে টাকা বিনিয়োগ করবেন তার চেয়ে বেশি অর্থ উপার্জন করতে পারবেন।

ফেসবুক একটি বিশাল ট্রাফিক উৎস এবং এখানে সব সময় কোটি কোটি সক্রিয় ট্রাফিক থাকে। এখন ধরুন আপনার কাছে এমন একটি পণ্য আছে যা Amazon বা Flipkart-এর মোবাইল টি-শার্ট গাড়ি, গ্যাজেট বা একটি রিসেলিং অ্যাপ হতে পারে।

আর এই সব কোম্পানির প্রোডাক্টের অ্যাফিলিয়েট লিংক শেয়ার করতে পারলে আপনার ফেসবুক পেজ বা গ্রুপে দেখা যায় অল্প কিছু লোক সেই প্রডাক্ত কিনেন বা কেনার অগ্রহ প্রকাশ করেন।

তবে যদি আপনি সেই পণ্যের ফেসবুক অ্যাড ব্যবহার করে লাখ লাখ মানুষের কাছে পৌঁছাতে পারেন, তাহলে হয়তো এখানে অনেক পণ্য বিক্রি হবে বলে আশা করা যায়। এক্ষেত্রে আপনার আয়ের পরিমাণ কয়েকগুণ বেড়ে যাবে।

এতক্ষণে আপনি নিশ্চয়ই বুঝতে পেরেছেন যে আপনি যদি ফেসবুকে বিজ্ঞাপনটি সঠিকভাবে চালাতে পারেন এবং বিজ্ঞতার সাথে কাজ করতে পারেন, তাহলে আপনি সেখান থেকে যা বিনিয়োগ করবেন তার চেয়ে তিন থেকে চারগুণ বেশি পাবেন ইনকাম করতে পারবেন।

ফেসবুকে Instant Article থেকে আয়

ফেসবুকে যুক্ত হয়েছে নতুন নতুন ফিচার। তাদের মধ্যে, facebook instant article নামক বৈশিষ্ট্যটি বিস্ময়কর। আপনার যদি একটি ব্লগ বা ওয়েবসাইট থাকে, পাশাপাশি একটি ফেসবুক পেজও থাকে।

তাহলে আপনি ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল থেকে বিপুল পরিমাণ আয় করতে পারবেন। এখন মনে প্রশ্ন আসতে পারে ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল কি? তাহলে উত্তর দেখুন নিচে

ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল কি?
ইনস্ট্যান্ট শব্দের অর্থ ‘তাত্ক্ষণিক’। ফেসবুক ব্যবহার করার সময় যদি কোন লিঙ্ক ক্লিক করা হয়। তাহলে এই তাত্ক্ষণিক নিবন্ধের লিঙ্কগুলি অন্যান্য লিঙ্কগুলির তুলনায় 10 গুণ দ্রুত অপেন হবে এবং পড়ার জন্য উপযুক্ত হবে।

ফেসবুকে যে কোন খবর খুব দ্রুত পড়া যায়। সেই সুবিধার কথা মাথায় রেখে এই বৈশিষ্ট্যটি যোগ করেছে ফেশবুক। যা শুধুমাত্র মোবাইল ব্যবহারকারীরা ব্যবহার করতে পারবেন।
এখন চলুন দেখি কভিাবে যুক্ত হতে হয়।

facebook instant article কীভাবে যুক্ত করবেন?

আপনি কয়েকটি ধাপ অনুসরণ করে তাত্ক্ষণিক নিবন্ধে আপনার ওয়েবসাইট যুক্ত করতে পারেন। চলুন জেনে নিই সেই পদ্ধতিগুলো সম্পর্কে।

ধাপ 1: প্রথমে আপনাকে একটি ব্রাউজার খুলতে হবে। তারপর ব্রাউজারের সার্চ বারে যান এবং টাইপ করুন, ‘https://instantarticles.fb.com’। তারপর আপনি সরাসরি ফেসবুকে তাত্ক্ষণিক নিবন্ধের অফিসিয়াল ওয়েব পেজে যাবেন।

ধাপ ২: তারপর আপনাকে সাইন আপ করতে হবে। যখন আপনি সাইন আপ বাটনে ক্লিক করবেন। তারপর পরবর্তী অপশনে আপনি প্রকৃতপক্ষে তাত্ক্ষণিক নিবন্ধ লিঙ্কটি যে কোনো পেজর মাধ্যমে শেয়ার করতে চান আপনাকে সেই পৃষ্ঠাটি নির্বাচন করতে বলা হবে।

ধাপ 3: যে পৃষ্ঠাটি আপনি এই বৈশিষ্ট্যটি চালু করতে চান। আপনাকে সেই পৃষ্ঠাটি নির্বাচন করতে হবে। তারপর একটু নিচের দিকে তাকালে দেখা যাবে ফেসবুকের শর্তাবলীর একটি চেক বক্স রয়েছে। আপনাকে সেই বাক্সে একটি টিক চিহ্ন দিয়ে চালিয়ে যেতে হবে।

ধাপ -4: তারপর আপনাকে সরাসরি আপনার ফেসবুক পেজে নিয়ে যাওয়া হবে। তারপর আপনি পাবলিশিং টুলস নামে একটি অপশন দেখতে পারেন। আপনাকে সেই অপশনে ক্লিক করতে হবে।

ধাপ -5: Publishing Tools- এ ক্লিক করার পর নিচের বাম দিকে ‘Facebook Instant Article’ নামে একটি নতুন অপশন দেখতে পাবেন। আপনাকে সেই অপশনে ক্লিক করে চালিয়ে যেতে হবে।

ধাপ-6: তারপর আপনি কনফিগার নামে একটি নতুন অপশন দেখতে পাবেন। আপনাকে সেই অপশনে ক্লিক করতে হবে। তারপর ‘অথরাইজ ইওর সাইট’ অপশনে ক্লিক করুন।

ধাপ -7: এই অপশনে ক্লিক করার পর, একটু নিচে স্ক্রোল করুন এবং আপনি একটি নতুন বক্স দেখতে পাবেন। সেই বক্সে আপনার ওয়েবসাইটের লিঙ্ক (ডোমেইন লিঙ্ক) দিতে হবে।

[দ্রষ্টব্য] নিচের কাজগুলো একটু মনোযোগ দিয়ে করুন। কারন যারা সম্পূর্ণ নতুন তারা এতদূর আসার পর কিছুই বুঝতে পারে না তাই তাদের এই দূরে আসার পর চলে যেতে হবে।

ধাপ -8: যদি আপনার ওয়েবসাইটটি ওয়ার্ডপ্রেস হয় এবং আপনি সেই ওয়েবসাইটটি facebook instant article যুক্ত করতে চান। তবে আপনাকে “facebook instant article” নামে একটি অ্যাড যোগ করতে হবে। এবং আপনাকে আপনার ওয়েবসাইটের url বসিয়ে আপনার বিজ্ঞাপন জমা দিতে হবে।

ধাপ-9: আর যদি আপনার ওয়েবসাইট এইচটিএমএল হয়। তাহলে আপনি খুব সহজেই এই কাজটি করতে পারবেন। ওয়েবসাইটের ইউআরএল প্রবেশ করার পরে আপনাকে কেবল ক্লেইম করতে হবে।

কিন্তু যদি আপনি করতে না পারেন সেক্ষেত্রে আপনি আপনার সাইটের ডেভেলপারের কাছে এটি করে নিতে পারেন।

ধাপ -10: যখন আপনি এই কাজগুলো সঠিকভাবে করতে পারবেন। তারপর সব নিবন্ধ আপনার ওয়েবসাইটে প্রকাশিত হয়েছে। সেই সমস্ত নিবন্ধগুলি স্বয়ংক্রিয় তাত্ক্ষণিক নিবন্ধে যোগ করা হবে।

আরও পড়ুনঃ কিভাবে নাম্বার দিয়ে পরিচয় বের করা যায়

Sharing Is Caring:

2 thoughts on “ফেসবুকে কিভাবে টাকা আয় করা যায়”

  1. অনেকে আছেন যাদের কাজ কর্ম নেই, আবার অনেকে একা একা বোরিং ফিল করে, তারাই মূলত ফেসবুকে এসে বিভিন্ন ধরনের পোষ্ট লিখে ছবি শেয়ার করে শুধু সময় কাটে মাত্র । ফেসবুক কাজে লাগিয়ে মানুষ এখন অনলাইন থেকে লক্ষ লক্ষ টাকা আয় করছে।
    ফেসবুক থেকে আয় করার সবথেকে সহজ পদ্ধতি সম্পর্কে জানতে এখানে দেখুন

    Reply

Leave a Comment