কিভাবে ফেসবুকে প্রতিদিন 500 আয় করা যায়

আজ আমরা আপনাদের সাথে একটি গুরুত্বপূর্ণ তথ্য শেয়ার করব। কিভাবে বাংলাদেশ থেকে Facebook এ ৫০০/- টাকা আয় করবেন। বাংলাদেশে বেকারত্বের সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে। এর মধ্যে করোনার কারণে বেকারত্বের হার আরও বেড়েছে। আজ আমি আপনার সাথে যে বিষয় নিয়ে আলোচনা করব তা আপনার জন্য খুব দরকারী হবে।

বর্তমানে বাংলাদেশের প্রায় ৯৫ শতাংশ মানুষ ফেসবুক ব্যবহার করছেন। কিন্তু সেই ফেসবুক ব্যবহার করে আমরা কোনো টাকা আয় করতে পারি না। ফেসবুক থেকে আয় করার অনেক উপায় আছে। আপনি যদি এই পদ্ধতিগুলি অবলম্বন করেন তবে আপনি সহজেই ফেসবুক থেকে প্রতিদিন ৫০০/- টাকার বেশি আয় করতে পারবেন। তাহলে চলুন দেখে নেওয়া যাক বাংলাদেশ থেকে খুব সহজে ফেসবুক থেকে প্রতিদিন ৫০০/- টাকা ইনকাম করতে আপনি কোন পদ্ধতি গুলি ব্যবহার করতে পারেন।

আলোচনার বিষয় সমূহঃ

ফেসবুকে আয় করার পদ্ধতি

কিভাবে ফেসবুকে প্রতিদিন 500 আয় করা যায় –  এমন শিরোনাম দেখে অনেকেই অবাক হচ্ছেন। আসলে অবাক হওয়াটাই সাভাবিক। এমন কোন উপায় নাই যে আপনি চাইলে আর ৫০০ টাকা ইনকাম করে ফেললেন। আজকে শিরোনাম এমন দেওয়ার কারন হলো আমাদের কাছে অনেকেই এই প্রশ্ন করে কিভাবে ফেশবুক থেকে ৫০০ টাকা দিনে আয় করা যায়। যাই হোক আমরা ধিরে ধিরে মূল আলোচনায় যাই-

কিভাবে ফেসবুকে প্রতিদিন 500 আয় করা যায়

কিভাবে ফেসবুকে প্রতিদিন 500 টাকা আয় করবেন?

বর্তমানে বাংলাদেশের প্রায় 95% মানুষ ফেসবুক ব্যবহার করে, কিন্তু 90% মানুষ জানে না যে ফেসবুক থেকে ভালো পরিমাণ আয় করা যায়। আমরা সহজেই ফেসবুক থেকে প্রতিদিন ন্যূনতম 500 টাকা আয় করতে পারি। আমরা ফেসবুক আইডিতে অনেক সময় ব্যয় করি। বিনিময়ে আমরা কোনো লাভ পাই না। তাছাড়া বিভিন্ন গ্রুপে জয়েন করে বা বড় ই-কমার্সের রিসেলার হিসেবে ফেসবুকে পোস্ট করে প্রতিদিন ন্যূনতম 500 টাকা করে আয় করা যায়। এ বিষয়ে বিস্তারিত জানতে হলে আমাদের পূর্বের পোস্ট পড়তে হবে পোস্ট লিংক- ফেসবুকে কিভাবে টাকা আয় করা যায়

ফেসবুক থেকে আয় করার নিয়ম

আমরা অনেকেই ফেসবুক-ইউটিউব বা অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়ায় আমাদের অবসর সময় কাটাই। অনেকেই সময় কাটানোর নাম করে অনলাইনে অনেক সময় ব্যয় করেন। কিন্তু জানেন কি এমন অনেকেই আছেন যারা ফেসবুক থেকে বিনা পয়সায় অনেক টাকা আয় করছেন।

ফেসবুকে আয় করার উপায়

ফেসবুকে অবসর সময় কাটানো ছাড়াও, তারা প্রতি মিনিটে, প্রতি ঘন্টায়, প্রতিদিন অর্থ উপার্জন করতে পারেন আপনিও। শুধু যে ফেসবুক অর্থ উপার্জন করতে পারেন তা নয় ফেসবুক অর্থ উপার্জনের মাধ্যমকে মেইন কাজ হিসাবেও নিয়েছেন অনেকে। ।এমনকি অনেকে ফেসবুক থেকে এত টাকা আয় করতে পারেন যে তাদের আর অতিরিক্ত অন্য কোন কাজ করার দরকার পরে না। বর্তমানে অনলাইনে ব্যবসা করে অর্থ উপার্জন করা খুবই সহজ একটা কাজ। আমরা এব বিষয়ে পূবেই বিস্তারিত আলোচনা করেছি অনেকটি পোস্টে যদি সেই পোস্টটি আপনি না পড়ে থাকেন তাহলে আজই পড়ে নিন । সেখান আমরা আয় করার বিভিন্ন উপায় তুলে ধরেছি পোস্টে লিংক- ফেসবুকে কিভাবে টাকা আয় করা যায়

তাই আজকের আর্টিকেলে আমরা জানতে চলেছি, অবসর সময় নষ্ট না করে কিভাবে ফেসবুক থেকে আয় করা যায়? এই বিষয়গুলি বিস্তারিতভাবে কভার করা হবে। তাই প্রবন্ধের শুরুতে পূর্বে পোস্টি পড়ার পরে এই পোস্টের শেষ পর্যন্ত পড়ার বিশেষ অনুরোধ রইল এবং পূর্বে আমি আশা করি আপনি আজকের নিবন্ধটি শেষ পর্যন্ত পড়বেন, এবং অন্তত একটি ছোট নিবন্ধ আপনার উপকারে আসবে

ফেসবুকের আয়

আজকের বিশ্বে খুব কম মানুষই আছে যাদের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট নেই। কিন্তু আপনার যদি ফেসবুক অ্যাকাউন্ট না থাকে তবে আপনি চাইলে খুব সহজেই ফেসবুক অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে পারেন। ফেসবুক অ্যাকাউন্ট তৈরি করার দরকার শুধুমাত্র আপনার নামের প্রথম এবং শেষ অংশ, একটি জিমেইল আইডি বা মোবাইল নম্বর।

আর আপনার বয়স, জন্মতারিখ ইত্যাদি দিয়ে আপনি চাইলে খুব সহজেই ফেসবুক অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে পারেন। যাই হোক, মূল বিষয় নিয়ে আলোচনা করা যাক। প্রথমে আপনি আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্টে লগইন করুন, ইনকাম করার জন্য আপনাকে প্রথমে যা করতে হবে তা নীচে আলোচনা করা হয়েছে।

ফেশবুক থেকে আয় করা কয়েকটি উপায় রয়েছে তার মধ্যে সব থেকে সহজ ও জনপ্রিয় উপায় হলো ফেশবুক পেজ থেকে ইনকাম। তাই শুরুতে ফেশবুক পেজ এর মাধ্যমে কিভাবে ইনকাম করা যাব সে বিষয়ে আলোজনা করব তাহলে চলুন শুরু করা যাক।

ফেসবুক আয় করে কিভাবে

প্রথমেই বলতে চাই যে ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে, অর্থাৎ আপনার যে সাধারন ফেসবুক অ্যাকাউন্ট আছে, যা আমরা নিয়মিত ব্যবহার করি, সেই অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে আমরা সরাসরি ফেসবুক থেকে টাকা আয় করতে পারব না। কারণ ফেসবুক ব্যবহারকারীর অ্যাকাউন্ট বা সাধারন ফেশবুক আইডি থেকে সরাসরি অর্থ উপার্জনের কোনো উপায় নেই।

আমরা জানি যে একটি ফেসবুক অ্যাকাউন্টে 5,000 এর বেশি বন্ধু যুক্ত করা যাবে না। সেজন্য আমি ফেসবুক প্রোফাইল থেকে মনিটাইজ করার কোনো সুযোগ দেইনি। তবে আপনার যদি কোনো ধরনের ব্যক্তিগত ব্লগ থাকে তবে আপনি ফেসবুক থেকে আপনার ব্লগের ভিজিটর বৃদ্ধি করে সেই ব্লগের পোস্ট ফেসবুক অ্যাকাউন্টে শেয়ার করে ব্লগের আয় বাড়াতে পারেন। যাইহোক, বেশিরভাগ লোকেরা তাদের ব্যক্তিগত ফেসবুক অ্যাকাউন্ট দিয়ে এটি করেন না। Facebook থেকে অর্থ উপার্জন করার জন্য, আপনার একটি ফেসবুক পেজ বা ফেসবুক ফ্যান পেজ থাকতে হবে।

ফেসবুক পেজ কি?

আমরা সাধারণত যে Facebook আইডি ব্যবহার করি সে Facebook আইডিতে সর্বোচ্চ 5000 বন্ধু এড করতে বা যোগ করতে পারি। তাই যখন আমি কিছু পোস্ট করি, তা কেবল আমার ফেসবুক বন্ধুদের কাছেই পৌঁছায় অর্থাৎ সেই ৫০০০ হাজার মানুষের কাছেই পৌঁছায় এর বেশি নয় ।কিন্তু আপনি আপনার নিজের ফেসবুক পেজ খুলে সহজেই আপনার পোস্ট গুলো আনলিমিটেড পাবলিক ভিজিটরদের কাছে আনতে পারেন।

এক কথায়, ফেসবুক পেজ হল একটি কম্পানি বা ইউটিউবের মতো একটি ভিডিও প্ল্যাটফর্ম, বা যার মাধ্যমে আমরা বিভিন্ন ধরণের পোস্ট করতে ও উপভোগ করে। এবং ভিডিও আপলোডের মাধ্যমে আয় করতে পারি। এছাড়াও যদি আপনার ওয়েবসাইট বা ব্লোগ থাকে তাহলে বেশবুক পেজ এর মাধ্যমে ইনস্টান আর্টিকেল ফিচার ব্যবহার করে আয় করতে পারবেন। বা যে কোন ধরনের প্রোডাক্ট বিক্রি করে আয় করতে পারবেন।

কিভাবে ফেসবুক পেজ তৈরী করবেন?

আপনার যদি একটি ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থাকে তবে আপনি সহজেই আপনার মোবাইলের মাধ্যমে একটি পেশাদার ফেসবুক পেজ তৈরি করতে পারেন। এটি করার জন্য, আপনাকে আপনার মোবাইলের Facebook অ্যাপ্লিকেশনটি খুলতে হবে এবং আপনার Facebook অ্যাকাউন্টে লগইন করতে হবে, তারপর হোম পেজের উপরের মেনু অপশনে ক্লিক করুন।

তারপর নিচের পেজ অপশনে ক্লিক করুন।
ধাপ ১- পরবর্তী পৃষ্ঠার উপরের দিকে (+) Create অপশনে ক্লিক করুন।
ধাপ ২-তারপর পরবর্তী নতুন পৃষ্ঠায় Get Started অপশনে ক্লিক করুন।
ধাপ ৩- এখন আপনি আপনার ফেসবুক পেজটি যে নামটি দিতে যাচ্ছেন সেটি লিখুন এবং Next অপশনে ক্লিক করুন।
ধাপ ৪- এখন আপনাকে আপনার ফেসবুক পেজের ক্যাটাগরি নির্বাচন করতে হবে। আপনি যে বিভাগটি সম্পর্কিত পৃষ্ঠা খুলতে চান তা নির্বাচন করুন এবং Next ক্লিক করুন।
ধাপ ৫- পরবর্তী পেজে ওয়েবসাইট থাকলে Enter Website অপশনে ওয়েবসাইটের লিংক দিতে পারেন, কিন্তু ওয়েবসাইট না থাকলে I don’t have a website অপশনে টিক চিহ্নের নিচে Next অপশনে ক্লিক করুন।
ধাপ ৬- তারপর আপনাকে ফেসবুক পেজের প্রোফাইল পিকচার এবং কভার ফটো অপশনে আপনার ফেসবুক পেজে প্রোফাইল পিকচার এবং কভার ফটো অপশনটি আপলোড করতে হবে এবং প্রোফাইল পিকচার এবং কভার ফটো অপশন আপলোড করে Done অপশনে ক্লিক করতে হবে।
ধাপ ৭- Important Next Step আপনার সামনে একটি বার্তা দেখাবে, তারপর Next অপশনে ক্লিক করুন।

এখন আপনার ফেসবুক পেজ সম্পূর্ণ তৈরী। এখন আপনি সহজেই এই ফেসবুক পেজে আপনার সমস্ত পোস্ট আপলোড করতে পারেন। তবে একটা কথা, আপনার পোস্টগুলো পাবলিশ করে নেবেন না করলে দর্শকরা সেই পোস্টগুলো দেখতে পাবে না।

কিভাবে ফেসবুক পেজ থেকে টাকা আয় করা যায়

আমরা অনেকেই জানি যে আপনি যেমন ইউটিউব থেকে অর্থ উপার্জন করতে পারেন, ঠিক তেমনি আপনি ফেসবুক পেজ থেকে অর্থ উপার্জন করতে পারেন। আপনি যদি ফেসবুক থেকে একটি ফেসবুক পেজ তৈরি করতে পারেন এবং ফলোয়ার বাড়িয়ে নিয়ে নতুন ভিডিও পোস্ট করতে পারেন, তাহলে আপনি ফেসবুক পেজ থেকে অর্থ উপার্জন করতে পারেন। আপনার যেমন ইউটিউবে মনিটাইজ এর মাধ্যমে টাকা আয় করা যায়, তেমনি ফেশবুক মনিটাইজের মাধ্যমে ও যায়।

তবে আপনার Facebook পেজে কমপক্ষে 10,000 লাইক বা ফলোয়ার থাকতে হবে। আপনার আপলোড করা ভিডিওটি অবশ্যই কমপক্ষে ৩ মিনিট থেকে উপরে হতে হবে৷ এছাড়াও, আপনি যে ভিডিওগুলি আপলোড করবেন তাতে মোট 30,000 ভিউ থাকতে হবে। তবে প্রতিটি ভিডিও অবশ্যই ৩ মিনিট করে দেখতে হবে। এবং ভিডিওগুলির নিজস্ব সামগ্রী থাকতে হবে। গুগল অ্যাডসেন্স বিজ্ঞাপন ছাড়া, আপনি প্রচারের মাধ্যমে ফেসবুক পেজ থেকে অর্থ উপার্জন করতে পারেন। এর জন্য, আপনার ফেসবুক পেজে প্রচুর ভিউ থাকতে হবে। চেষ্টা করলে আপনি পারবেন এই আশা আমি করি।

ফেশবুকে In-Stream Ads  মাধ্যমে আয়

ফেসবুক In-Stream Ads কি?

Facebook In-Stream Ads হল এমন একটি পরিষেবা যা ফেসবুক পেজে আপলোড করা ভিডিও বিজ্ঞাপন বা দেখানোর জন্য ব্যবহার করা যেতে পারে। লোকেরা যখন এই বিজ্ঞাপনগুলি দেখে বা ক্লিক করে তখন আপনি Facebook থেকে অর্থ উপার্জন করতে পারেন৷ তবে, ফেসবুক ইন-স্ট্রীম বিজ্ঞাপনগুলি ফেসবুক পেজ ছাড়া অন্য কোথাও ব্যবহার করা যাবে না।

আরও পড়ুনঃ মৃত বাবাকে নিয়ে স্ট্যাটাস

ফেসবুক In-Stream Ads পেতে যা যা দরকার?

Facebook In-Stream Ads পরিষেবা ব্যবহার করতে, আপনার Facebook পেজে কিছু যোগ্যতার প্রয়োজন হবে। আপনার Facebook পেজে নিম্নলিখিত যোগ্যতা না থাকলে, আপনি ভিডিওতে ইন-স্ট্রীম বিজ্ঞাপন ব্যবহার করতে পারবেন না।

আপনার নিজের ফেসবুক পেজ থাকতে হবে। ইন-স্ট্রিম বিজ্ঞাপন ফেসবুক পেজ ছাড়া অন্য কোনো ভিডিওতে স্থাপন করা যাবে না. আপনার ফেসবুক পেজে 10,000 লাইক থাকতে হবে।

গত 60 দিনে, আপনার Facebook পৃষ্ঠার ভিডিওটি ন্যূনতম 30,000 ভিউ থাকতে হবে এবং প্রতিটি ভিউর ন্যূনতম 1 মিনিট থাকতে হবে। উপরন্তু, আপনার প্রতিটি ভিডিও কমপক্ষে 3 মিনিট দীর্ঘ হতে হবে। কারণ ফেসবুক 3 মিনিটের ছোট ভিডিওতে বিজ্ঞাপন দেখায় না। আপনার বয়স কমপক্ষে 18 বছর হতে হবে।

যদি আপনার ভিডিওর ভাষা Facebook ইন-স্ট্রীম বিজ্ঞাপন সমর্থন না করে, তাহলে ভিডিও আপলোড করলে ভিডিওটি নগদীকরণ হবে না। তবে টেনশনের কোনো কারণ নেই, ফেসবুক ইন-স্ট্রিম বিজ্ঞাপন বাংলা ভাষা সমর্থন করে।

ফেসবুকে লেখালেখি করে আয়

আসলে ফেসবুকে গল্প লিখে বা লেখা লেখি করে আয় করার কোন অপশন নাই তবে বুদ্ধি খাটিয়ে একটু ভিন্ন ভাবে করা যেতে পারে সে বিষয়ে নিচে আলোচনা করা হলো।

আজকাল, লোকেরা ফেসবুকে দিনের বেশিরভাগ সময় কাটানোর জন্য হার্ড কপি বইয়ের পরিবর্তে আরও বেশি ফেসবুক গল্প পড়ছে। বাস্তব জীবনের গল্প, জীবনের উত্থান-পতন, প্রেমের সাফল্য-ব্যর্থতা ফেসবুকে অত্যন্ত মূল্যবান। তাই আপনার চারপাশের ঘটনা নিয়ে সুন্দর ভাষায় ছোট গল্প লিখতে পারেন। এতে আপনার জনপ্রিয়তা বৃদ্ধির পাশাপাশি ফেসবুকে আপনার অনেক ফলোয়ার বাড়বে।

ফেসবুকে গল্প লিখে আয়

এটি আপনি একটি প্ল্যাটফর্ম হিসাবে নিতে পারেন। আপনি আপনার ফেসবুক গ্রুপ বা পেজে দিনে দিনে বিভিন্ন ইভেন্টের আয়োজন করে উপহারের ব্যবস্থা করতে পারেন এবং পেজ বা গ্রুপের সদস্য সংখ্যা বাড়াতে পারেন। এইভাবে, যখন আপনার গ্রুপে ফেসবুক বন্ধুর সংখ্যা বাড়বে, তখন আপনি এই পেজ বা গ্রুপটিকে অন্য সেক্টরে ব্যবহার করবেন।

যেহেতু এটি একটি সুদূরপ্রসারী কাজ, তাই আপনাকে সুন্দর গল্পের মাধ্যমে মানুষকে আমন্ত্রণ জানাতে হবে। তারপর যখন আপনার অনেক ফ্যান ফলোয়ার থাকবে তখন আপনি সেলিব্রিটি হিসেবে বিভিন্ন পণ্য বিক্রি করতে পারবেন। তবে অবশ্যই এই পণ্যগুলি ভাল হতে হবে এবং পণ্য বিক্রির জন্য যাতে লোকে কেনে সেই জন্য বিজ্ঞাপন দিতে হবে।

আরও পড়ুনঃ কিভাবে ফেসবুক আইডি ফিরে পাব

ফেসবুকে লাইক দিয়ে টাকা আয়

আসলে ফেসবুকে লাইক দিয়ে টাকা আয় কোন উপায় নাই। আর এমন চিন্তা করাও বোকামো ছাড়া কিছুই নয়। আপনি নিজেই ভাবুন তো আপনি একটা পোস্টে লাইক দিলে সে আপনাকে টাকা দিল এটা কি সম্ভব?

ফেসবুক থেকে আয় করার সহজ উপায় কি ?

আমার মতে ফেসবুক থেকে আয় করার সহজ উপায় হলো আপনি আপনার পেজের মাধ্যমে পণ্য বিক্রি করে অর্থ উপার্জন করতে পারেন। বিভিন্ন বড় মার্কেটপ্লেস রয়েছে যারা বিভিন্ন পেজ এবং ওয়েবসাইটের মাধ্যমে তাদের পণ্য বিক্রি করে। আপনি এফিলিয়েট প্রোগ্রামিং সেট আপ করে Facebook থেকে অর্থ উপার্জন করতে পারেন।

এবার ফেশবুক আয় আর্টিক্যাল নিয়ে কিছু প্রশ্ন ও তার উত্তর

ফেসবুকের আয়ের উৎস কি ?

উত্তর- ফেসবুকের আয়ের একমাত্র উৎস ফেশবুক পেজ, আইডি ও গ্রুপ।

ফেসবুকে আয় করুন

উপরের সম্পুর্ন আর্টিক্যাল পড়ে আপনি এব বিষয়ে ধারনা পেয়েছেন বলে আশা করি।

ফেসবুকে আয় বিকাশে পেমেন্ট

অনেকেই বিকাশের জন্য টাকা নিতে চান, কারণ বিকাশে টাকা সহজে উত্তোলন বা খরচ করা যায়, কিন্তু অনলাইন গ্লোবাল আয়ের টাকা বিকাশের মাধ্যমে তারা অর্থ প্রদান করে না। তবে বাংলাদেশের কিছু বড় ই-কমার্সের রিসেলার হিসেবে ফেসবুকে পোস্টের মাধ্যমে আয়ের টাকা বিকাশে পেমেন্ট করে থাকে।

ফেসবুকের দৈনিক আয় কত ?

উপরের আলোচনায় আশা করি আপনি বুঝতে পেরেছেন ফেসবুকের দৈনিক আয় কত টাকা আয় করা যায়।

আরও পড়ুনঃ ফেসবুক থেকে ভিডিও ডাউনলোড

আরও প্রশ্ন ও গুগল সার্চ কিওয়ার্ড :

ফেসবুক কিভাবে আয় করে
ফেসবুকে আয় করতে চাই
ফেসবুকে টাকা আয়
ফেসবুকে কিভাবে টাকা আয় করা যায়
ফেসবুকে কিভাবে টাকা আয়
ফেসবুকে লাইক দিয়ে টাকা আয়
ফেসবুকে টাকা আয় করার উপায়
ফেসবুক থেকে আয়
ফেসবুক থেকে আয় ২০২২
ফেসবুক থেকে আয় করার সহজ উপায়
ফেসবুক থেকে আয় করুন
ফেসবুক ভিডিও থেকে আয়
ফেসবুক থেকে আয় করার নিয়ম
ফেসবুক থেকে কিভাবে আয় করা যায়
ফেসবুকে টাকা আয় করার নিয়ম

ফেসবুকের মাধ্যমে আয় করার বিস্তারি ধারনা পেতে এই পোস্ট পড়ুন-

ফেসবুকে কিভাবে টাকা আয় করা যায়

আরও পড়ুনঃ টেলিটকসহ সকল সিমের নাম্বার দেখার উপায়

Sharing Is Caring:

Leave a Comment