ফেসবুক স্ট্যাটাস । ভালোবাসার ছন্দ

ফেসবুক স্ট্যাটাস । ভালোবাসার ছন্দ

ফেসবুক স্ট্যাটাস । ভালোবাসার ছন্দ

আজকে বাংলা ভাষাভাসি সকল প্রেমিক প্রেমিকাদের জন্য আমাদের এই পোস্ট- ভালবাসা অনুভূতি একটি সুন্দর অনুভূতি যা কথায় সহজে প্রকাশ করা অসম্ভববেই নয় দুরসাধ্য বটে। আর তাই ভালোবাসার অনুভূতি প্রকাশ করার জন্য অনেক লোক প্রেমের কবিতা এবং রোমান্টিক ভালোবার ছন্দের সন্ধান করে থাকেন। যদি আপনি তাদের মধ্যে একজন হয়ে থাকেন তবে আপনি সঠিক জায়গায় এসেছেন। কারণ এই পোস্টে আপনি রোমান্টিক প্রেমের কবিতা থেকে শুরু করে মিষ্টি প্রেমের ছন্দ ও ছড়াসহ সব ধরণের সুন্দর প্রেমের কবিতা বা লিখনি পাবেন যা আপনি অনায়াসে আপনার ফেসবুক স্ট্যাটাস বা ম্যাসেনজারে ব্যবহার করতে পারবেন।

ফেসবুক ব্যবহারকারীদের জন্য, ফেসবুক স্ট্যাটাস ফেসবুকের একটি বড় অংশ। আপনি যদি আপনার ফেসবুক স্ট্যাটাসে বেশি বেশি লাইক কমেন্ট ও শেয়ার  পেতে চান তবে আপনাকে এমন পোস্ট করতে হবে যা দেখেতে বা পড়ে মানুষের ভালো গালে তাই আমরা আজ এই ফেসবুক স্ট্যাটাস ও এসএমএস ভালোবাসার ছন্দ পোস্টটি এমন সাজিয়েছি যা দেখে সবার ভালো লাগবে ।  আর একটা বিষয় হলো ফেসবুক যে  যত বেশি সুন্দরভাবে তার ফেসবুক স্ট্যাটাস লিখতে পারবেন সে তত ফেসবুকে বেশি জনপ্রিয় হয়ে উঠে ।

ফেসবুক স্ট্যাটাস ও এসএমএস ভালোবাসার ছন্দ

“দূরে গেলে তুমি,
হারিয়ে যাবাে আমি।
ভালােবাসি তােমায়,
বােঝনা কেন তুমি।
ছােট্ট এই জীবনে,
একটাই শুধু চাওয়া।
তােমাকে আপন করে,
আমার শুধু পাওয়া।”

 

“দিন ফুরাবে রাত ফুরাবে,
ফুরাবে ফুলের প্রান,
সমায় ফুরাবে, জীবন ফুরাবে,
ফুরিয়ে যাবে জান,
But তোমার জন্য ফুরাবে না,
আমার ভালোবাসার টান।
I LOVE YOU”

“ডালটি হলো সবুজ,
ফুলটি হলো লাল,
তোমার আমার ভালোবাসা
থাকবে চিরকাল।”

“আমি হলাম সাগর
তুমি হলে ঢেউ,
চুপি চুপি প্রেম করবো
জানবে নাতো কেউ।”

ফেসবুক স্ট্যাটাস বাংলা

“ফুলে ফুলে সাজিয়ে রেখেছি এই মন,
তুমি আসলে দুজন মিলে
সাজাবো জীবন।
চোখ ভরা স্বপ্ন বুক ভরা আশা
তুমি আসলেই ডাউনলোডে দিবো

“রাতের আকাশে অনেক তারা।
একলা লাগে তােমাকে ছাড়া।
শুধু ভাবি তােমার কথা।
কেমন আছাে আমাকে ছাড়া ?”

“পাখির ঠোঁটে চিঠি দিলাম,
তুমি খুলে পড়ো।
স্বপ্ন দেখে ভয় পেলে
হাতটা চেপে ধরো।
রাত জাগা পাখির মত
জেগে আছি আমি,
মনটা আমার জানতে চায়
কেমন আছো তুমি ?”

স্কুল লাইফে তোমায় দেখি
কলেজ লাইফে প্রেম,
হাতের মাঝে উল্কি এঁকে
লিখেছি তোমার Name..

ফেসবুক স্ট্যাটাস রোমান্টিক প্রেমের কবিতা

আজ ছন্দ মহলে
মিলছে দুটি মন,
মনে মনে বলবে ওরা
কথা যে সারাক্ষন,
কথার মাঝে থাকবে
গভীর ভালোবাসা,
ভালোবাসার মাঝে থাকবে
দুটি মনের বেকুলতা

শুধু তুমি আছো তাই,
আমি কথা খুঁজে পাই,
দূর হতে আমি তাই,
তোমায় দেখে যাই
তুমি একটু হাসো তাই,
আমি চাঁদের মিষ্টি আলো পাই

আমার স্বপ্ন জলধারায় তুমি,
রিমঝিম সুরে ঝরা বৃষ্টি
আমার হৃদয় canvus জুড়ে,
তুমি ঈশ্বরের অপূর্ব সৃষ্টি

তুমি আমার রঙিন স্বপ্ন,
আমার চাঁদের আলো,
তুমি আমার নদীর মাঝে
একটি মাত্র কূল,
তুমি আমার ভালবাসার
শিউলি বকুল ফুল…

“ভালবাসা সপ্ন নীল
আকাশের মত সত্য,
শিশির ভেজা ফুলের মত পবিত্র!!
কিন্তু সময়ের কাছে পরাজিত,
বাস্তবতার কাছে অবহেলিত।”

“তুমি যদি না বুঝো
বুঝবে আমায় কে।
তুমি যদি পর ভাবাে
আপন ভাববে কে।
তুমি যদি কষ্ট দাও
সুখ দিবে কে।
তুমি যদি ভুলে যাও
মনে রাখবে কে …!”

“SMS হয়ে থাকবাে আমি
তােমার হৃদয় জুড়ে,
রিংটোন হয়ে বাজবাে আমি
মিষ্টি মধুর সুরে,
কখনাে ভেবােনা আমি
তােমার থেকে দুরে,
বন্ধু হয়ে আছি আমি
তােমার নয়ন জুড়ে।”

“মুখ দিয়ে নয় হৃদয় দিয়ে…
ভালোবাসি বলতে চাই!
নৈঃশব্দের কোলাহলে..
শব্দ নিয়ে খেলতে চাই!”

“নীল আকাশে তারার মেলা।
মধ্য রাতে চাঁদের খেলা।
স্নিগ্ধ সকাল শিশির ভেজা।
শুধু দেখো,
আমার প্রেমে কত মজা!!”

“ভালােবাসি ভালােবাসি,
সবাই বলতে পারে।
সত্যি কারের ভালােবাসা,
কজন দিতে পারে৷”

সূখের জন্য স্বপ্ন,
দুখের জন্য হাঁসি,
দিনের জন্য আলো,
চাঁদের জন্য নিশি,
মনের জন্য আশা,
তোমার জন্য রহিল
আমার অন্তরের ভালোবাসা।

তোমার ভালবাসা মন
খোঁজে সারাক্ষণ,
মনের আশা পূরণ করতে
তোমায় প্রয়োজন,
শূন্য মনে লুকিয়ে আছে
অনেক গুলো আশা,
তার মধ্যে অন্যতম
তোমার ভালবাসা।

ভুলিনিত আমি
তোমার মুখের হাসি,
আমার গাওয়া গানে
তোমাকে ভালবাসি।
আসো আবার পাশে,
হাতটা ধরে চলো আবার
সেই নদী তীরে।

হৃদয় কেটে বানিয়েছি
ছোট্টো একটি খাম,
সে খামেরী ভেতরে লিখেছি
তোমার নাম,
সে খামটি কিনে নিও
ভালোবাসার দামে,
কোনদিনও ছিড়ে ফেলনা
নিরব অভিমানে!!

একটু দূরে সরলেই তুমি
মেজাজটা যায় চড়ে,
ইচ্ছে করে এই পৃথিবী
ভষ্ম করি পুড়ে।
আমার কাছে তুচ্ছ সবই
কেবল তুমি ছাড়া,
তোমার জন্য প্রধানমন্ত্রীকেও
করতে পারি তাড়া।

প্রখর রোদে ঘামছি আমি
ভাবছি এ যে বৃষ্টি,
মন্দের মাঝেও ভালো থাকি
পেলে তোমার দৃষ্টি।
তোমায় ছাড়া শূন্য ভূবন
মহাকাশের মতো,
নেই পাশেও তবু তোমায়
ভাবছি অবিরত।

“মনেতে আকাশ হয়ে
রয়েছো ছড়িয়ে,
বলোনা কোথায় রাখি
তোমায় লুকিয়ে।
থাকি যে বিভোর হয়ে
শয়নে স্বপনে।
যেও না হৃদয় থেকে
দূরে হারিয়ে,
আমি যে ভালবাসি
শুধু-ই তোমাকে।”

“সারাক্ষন ভাল থেকো,
ভালবাসা মনে রেখো।
দিনের বেলা হাঁসি মুখে,
রাতের বেলা অনেক সুখে।
নানা রঙের স্বপ্ন দেখো,
স্বপ্নের মাঝে আমায় রেখো।”

“খুঁজিনি কারো মন,
তোমার মন পাব বলে।
ধরিনি কারো হাত,
তোমার হাত ধরবো বলে।
হাঁটিনি কারো সাথে,
তোমার সাথে হাঁটবো বলে।
কাউকে বাসিনি ভালো,
তোমাকে ভালবাসি বলে।”

“লাগবে যখন খুব একা,
চাঁদ হয়ে দিবো দেখা…
মনটা যখন থাকবে খারাপ,
স্বপ্নে গিয়ে করবো আলাপ…
কষ্ট যখন মন আকাশে,
তাঁরা হয়ে জ্বলবো পাশে..!!”

“একটা আকাশ হেরে গেলো,
হারিয়ে তার মন..
অন্য আকাশ হটাৎ হল
চাঁদের প্রিয়জন..
তবুও তার ভালবাসা
চাঁদের ভালো চায়,
নতুন আকাশ চাঁদকে
যেন সুখের ছোঁয়া দেয়..!!”

“চোখে আছে কাজল
কানে আছে দুল,
ঠোট যেন রক্তে রাঙা ফুল,
মুখে মিষ্টি হাঁসি,
এমন একজন মেয়েকে
সত্যি আমি ভালোবাসি।”

“সবার থেকে ছােটোশব্দটা হলাে
‘আমি’!
সবার থেকে মিষ্টিশব্দটা হলাে
‘ভালােবাসা’!
এবং আমার প্রিয় বন্ধুদের মধ্যে
যাকে আমি কখনাে ভুলতে
পারবাে না, সেইজন হলে
‘তুমি’।”

মন যদি আকাশ হত তুমি
হতে চাঁদ।
ভালোবেসে যেতাম শুধু
হাতে রেখে হাত।
সুখ যদি হৃদয়ে হত,
তুমি হতে খুসি।
হৃদয়ের দুয়ার খুলে দিয়ে
বলতাম তোমায় ভালোবাসি।

স্বপ্ন দিয়ে আঁকব আমি
সুখের আল্পনা।
হৃদয় দিয়ে খুঁজব আমি
মনের ঠিকানা।
ছায়ার মত থাকব আমি
শুধু তারি পাশে।
যে আমাকে নিজের থেকেও
বেশি ভালবাসে।

মিষ্টি প্রেমের সাইরি
তুমি আমার ভালবাসা,
আমি তোমার জান।
ভালবাসার ফুল দিয়ে,
লিখবো তোমার নাম।
তুমি আমার ময়না পাখি,
আমি তোমার টিয়া।
তোমায় আমি রাখবো বুকে,
ভালবাসা দিয়া।

Read more

কালা যাদু/জাদু বা ব্ল্যাক ম্যাজিক কি? কিভাবে কাজ করে?

কালা যাদু/জাদু বা ব্ল্যাক ম্যাজিক কি? কিভাবে কাজ করে?

কালো জাদু কি?

কালো জাদু একটি ঐতিহ্যগত ভাবে অলৌকিক শক্তি যা মন্দ/খারাব এবং স্বার্থহাছিলের উদ্দেশ্যে কালো জাদু ব্যবহার হয়ে আসছে প্রাচিনকাল থেকে। আজ আমরা আলোচনা করবো কালো জাদু বিষয় বান মারা, তাবিজ করা বা কুফরি যাদু— এই শব্দগুলি সম্বন্ধে কমবেশি আমরা প্রায় সবাই পরিচিত। এইগুলিকে এক কথায় ‘কালা যাদ বা ব্ল্যাক ম্যাজিক বলে। এগুলি বস্তুত সেই তুকতাক প্রক্রিয়া যার মাধ্যমে মানুষের ক্ষতি সাধন করা হয় এবং হয়ে আচ্ছে। সহজ করে বললে বলা কালা যাদু এক ধরনের সুপার ন্যাচারাল পাও-য়ার, যেটা খারাপ উদ্দেশ্যে অন্যের ক্ষতি করার জন্য প্রয়োগ করা হয়ে থাকে। এখন পর্যন্ত পৃথিবীতে এমন কোনো দেশ বা জাতি নেই যেখানে বা যারা কালো যাদু চর্চা  নেই বা করে না।তাই আজকের এই পোষ্টে কালা যাদু/জাদু বা ব্ল্যাক ম্যাজিক কি? কিভাবে কাজ করে?  হিন্দু ও বৌদ্ধরা বহু প্রাচীন কাল ধরেই এই কালা যাদসাহায্য নিয়ে আসছে।

বিশেস করে হিন্দু ‘তন্ত্র-সাধনায়’ মূলত কালা যাদুই চর্চা হয়ে আসছে প্রাচিন কাল থেকে।‘তন্ত্রে -উচাটন’, ‘মা-রণ’, ‘ক-রণ’, ‘বিদ্বে-ষণ’, ‘স্ত-ম্ভন’, ‘আক-র্ষণ’ (মোহন) ও ‘বশী-করণ’— এই ৬টি প্রক্রিয়াকে আভিচারিক ষট-কর্ম বা কালো যাদু বলা হয়ে থাকে বা এ গুলোই হলো ব্ল্যাক ম্যাজিক  বশীকরণের সাহায্য নেওয়াটা আজকাল আমাদের দেশে বা বর্তমান বিশ্বে তথা ইয়োরোপ ও আমেরিকার মত দেশে অনেকের কাছে খুবই প্রচলিত। বশীকরণ পুরোপুরি কালো যাদুরই একটি অংশ বটে।

কালো জাদু চর্চা?

সারা বিশ্বে কালাে যাদু/জাদুর চর্চাকারীরা  এই কাজ করে থাকে পেশাদার হিসাবে। আর সারা দুনিয়ার সকল কালা যাদুর সাহায্য নিয়ে থাকেন অধিকাংশ নারীরা, তাঁদের মধ্যে শিক্ষা দিক্ষার কোন বালাই নাই কোন প্রকার কোনও তফাৎ নেই সবাই কালা যাদুর সাহায্য নিয়ে থাকেন। তারা আগ পাছ না ভেবে কালো জাদুর ফাদে পা দিয়ে ফেলেন।

কালো জাদু মন্ত্র ঃ-

নারী বশিকরন মন্ত্র কালা যাদুঃ নিন্মক্ত বিষটি একটি কালা যাদুর মধ্যে পরে। একথায় যেখানেই মানুষের ক্ষতি হয় কিছু থাকে এবং যেখানেই ধর্ম বাইরে  কিছু থাকে সেটাকে কালা যাদু বলা হয়। অর্থাৎ কালা যাদু করা মানে ধর্ম বিরোধিতা করা। তবে এক্ষেত্রে একটি বিষয় প্রমানিত  যে কালা যাদু কখনও বিফল যায় না তবে যদি সাধ-ক/সাধি-কা এটি ঠিক মত পালন করতে পারে। এটি যেমন একজন নারীর ক্ষেত্রে প্রযোয্য তেমনি পূরুষের ক্ষেত্রেও প্রযোয্য। কিছু কাজ করে আপনাকে একটি মন্ত্র  ১০৮ বার পাঠ করে জথা স্থানে ফু মা-রবে। এভাবেই কাংখিত  সেই নারী বা পুরুষ অবশ্যই  দৃর্ব-ল  হইবে। প্রেম প্রা-থনা করিতে আ-গ্রহী হবে।

কালো জাদু শেখার উপায়?

আমাদের মধ্যে অনেক মানুষেই ভারতের কামরূপ কামাখ্যা ও তারাপীঠে যান কালো জাদু শেখার জন্য বা ভিতরে ভিতরে কালা যাদুর ভাল ওঝার বা শেখার সন্ধানে। প্রতি দিন খবরের কাগজে বা টিভিতে বিশেষ করে ভারতেই অনেক তান্ত্রিকের নামে টিভি বা পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দেখতে পাওয়া যায় । তান্ত্রি-কেরা  সবাই কালা যাদুর সাহায্য নেওয়ার লোক বা রুগী খোঁজে এই মুহূর্তে ভারতের মধ্যে কালা জাদুর পীঠস্থান হিসেবে অসমের মে-ওং বিশেষ ভাবে খ্যাতি লাভ করেছে। পৃথিবীর বহু দেশ থেকে বহু পুরুষ ও মহিলারা এখানে এসে থাকেন কালা যাদুর সাহায্য নেওয়ার জন্য। ভারতের বর্তমানকালের বেঙ্গালুরু অতীতে দক্ষিণ ভারতের কালা যাদুর পীঠস্থান হিসেবে খ্যাতি লাভ করেছিল।

কালা যাদু/জাদু বা ব্ল্যাক ম্যাজিক কি? কিভাবে কাজ করে?
কালা যাদু/জাদু বা ব্ল্যাক ম্যাজিক কি? কিভাবে কাজ করে?

Read more

বাড়িতে মা উলগ্ন/নগ্ন আবস্থায় ঘুরে বেড়ানো নিয়ে তরুণের অস্বস্তি প্রশ্ন করেন বিশেষজ্ঞ পল্লবী বার্নওয়াল কাছে

যদি নারীর নগ্নতাই অসুবিধার কারণ হয়, তা হলেও দ্বিধা কাটিয়ে ওঠাটাই উচিৎ হবে । বাড়িতে নগ্ন হয়ে ঘুরে বেড়ানো কত …

Read more