বাড়ী ভাড়া নমুনা চুক্তিপত্র

ফ্ল্যাট বা বাড়ি ভাড়া দেওয়া বা নেওয়ার ক্ষেত্রে চুক্তি করা অনেক জরুরী কারন বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন কারনে অনেক সমস্যার সৃষ্টি হয়, এমন অনাকাংখিত সমস্যা এরাতে বাড়ী ভাড়া চুক্তিপত্র করা জরুরী। আর বাড়ী ভাড়া চুক্তিপত্র করার ক্ষেত্রে ফ্ল্যাটের মালিক এবং ভাড়াটে উভয়েরই চুক্তিপত্র সম্পর্কে স্পষ্ট ধারণা থাকা উচিত।

পোস্ট ক্যাটাগরি
লেখাপড়া
বিষয়বস্তুবাড়ী ভাড়া ক্তিপত্র
বাড়ী ভাড়া নমুনা চুক্তিপত্র
বাড়ী ভাড়া নমুনা চুক্তিপত্র

এই কথা মাথায় রেখে সাহায্য বিডি পাঠকদের জন্য আমরা সেই চুক্তিপত্ররে দুইটি নমুনা তুলে ধরা হলো আজকের এই পোস্টে, এখানে গ্রামের বাড়ির জন্য প্রথম বাড়ী ভাড়া নমুনা চুক্তিপত্র টি ব্যবহার করা যাবে, এবং দ্বিতীয় বাড়ী ভাড়া নমুনা চুক্তিপত্র শহরের বাড়ি বা ফ্লাটের জন্য ব্যবহার করা যাবে –

বাড়ি ভাড়ার চুক্তিপত্র লেখার নিয়ম

এবার দেখুন বাড়ী ভাড়ার চুক্তি পত্র কিভাবে লিখবেন।

বাড়ী ভাড়া নমুনা চুক্তিপত্র ১

———–১নং নমুনা চুক্তিপত্র এখান থেকে শুরু———-

প্রথম পক্ষঃ
নাম ঃ মো: রহিম আলী
পিতার নাম ঃ মৃত: কামাল উদ্দিন
ঠিকানা ঃ উত্তর হংসরাজ পোষ্ট: শেওটগাড়ী
থানা: ডোমার জেলা: নীলফামারী

দ্বিতীয় পক্ষঃ
নাম ঃ মোঃ কাকারু রহমান
পদবী ঃ নির্বাহী পরিচালক
ঠিকানা ঃ প্রধান কার্যালয় কুখাপাড়া,
নীলফামারী সদর।

যেহেতু দ্বিতীয় পক্ষ প্রথম পক্ষের জেলা -নীলফামারী , উপজেলাঃ ডোমার, মৌজা : হংসরাজ দাগ নং-১৪০, খতিয়ান নং-………………, আরএস-……………….., এর বাড়িটি ৩ (তিন) টি কক্ষ আবাসিক দাপ্তরিক কাজে ব্যবহারের নিমিত্তে ভাড়া দিতে রাজি আছেন এবং প্রথমপক্ষ তার উল্লেখিত বাড়িটির ৩(তিন) টি কক্ষ দ্বিতীয় পক্ষকে ভাড়া দিতে সম্মত হয়েছে। সেহেতু উভয়পক্ষ নিন্ম বর্ণিত শর্তাবলী মেনে চলার অঙ্গীকার করে এই চুক্তি পত্র অদ্য ২৯/১১/২৩ইং তারিখে স্বাক্ষর করিলাম।

চুক্তির শর্তাবলীঃ

১। চুক্তিটি ০১/১২/২০২৩ইং তারিখ থেকে কার্যকর হবে।

২। চুক্তিটি ০১/১২/২০২৩ ইং তারিখ থেকে ৩১/১২/২০২৭ইং তারিখ পর্যন্ত বলবৎ থাকিবে।
দ্বিতীয় পক্ষ চুক্তির মেয়াদ বাড়াতে চাহিলে প্রথম পক্ষের সম্মতি ক্রমে চুক্তি সম্পাদন করিতে হবে।

৩। দ্বিতীয় পক্ষ প্রথম পক্ষকে ৩০০০/ (তিন হাজার) টাকা হারে মাসিক ভাড়া প্রদান করিবেন। প্রতি মাসের
ভাড়া পরবর্তী মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহে প্রথম পক্ষকে রশিদ প্রদান করে দ্বিতীয় পক্ষের নিকট থেকে
বাড়ি ভাড়া গ্রহন করবেন।

৪। চুক্তি বলবৎ থাকাকালীন সময়ে কোন রকম ভাড়া বৃদ্ধি করা যাবে না।

৫। বিদ্যুৎ, সাপ্লাই পানিসহ ও গ্যাস সরবরাহ প্রথমপক্ষ নিশ্চিত করবেন। তবে চুক্তি বলবৎ এর
তারিখ হতে বিদ্যুৎ ও গ্যাস ব্যবহার জনিত বিল দ্বিতীয় পক্ষকে পরিশোধ করিতে হইবে।

৬। বাড়ীর যাবতীয় ট্যাক্স ও চুক্তি সম্পাদনের পূর্ববর্তী সকল দায় প্রথম পক্ষকে বহন করতে হবে।

৭। বাড়ী মেরামত, চুনকাম, সংস্কার প্রয়োজন হলে এ সংক্রান্ত সকল ব্যয়ভার প্রথম পক্ষ বহন
করবেন।

৮। ভাড়াকৃত বিল্ডিংটি কোন ভু-কম্পন, অগ্নিকান্ড কিংবা কোন প্রাকৃতিক দূযোর্গ বা রাজনৈতিক বা
অন্যান্য কারণে বাড়ীটির ক্ষতি সাধন হলে দ্বিতীয় পক্ষ দায়ী থাকবে না।

৯। চুক্তির মেয়াদ শেষ হইবার পূর্বে প্রথম পক্ষ দ্বিতীয় পক্ষকে বাড়ী ছাড়ার নোটিশ দিতে পারবে না।

১০। চুক্তি বলবৎ থাকাকালিন ৩ (তিন) টি কক্ষ সম্পূর্ণভাবে দ্বিতীয় পক্ষের দখলে থাকবে। প্রথম পক্ষ
বা তার কোন ওয়ারিশগণ বাড়িটির ৩(তিন) টি কক্ষ ব্যবহারে কোন ব্যাঘাত সৃষ্টি করলে দ্বিতীয়
পক্ষ আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করতে পারবেন।

১১। চুক্তি থাকাকালীন সময়ে প্রথম পক্ষ যদি কোন ক্রমে বাড়ীর ৩(তিন) টি কক্ষের সার্ভিসের কাজ
(পায়খানা ওয়াস, পানি সরকরাহের লাইন মেরামত ও বিদ্যুৎ সরবরাহ ইত্যাদি) করতে অনিচ্ছা বা অপারগ হন তাহলে দ্বিতীয় পক্ষ উক্ত কাজ করিয়া নিবেন। যাহার খরচ মাসিক ভাড়া থেকে কর্তন করা হবে।

১২। উপরোক্ত ভাড়ার প্রেক্ষিতে প্রথম পক্ষ দ্বিতীয় পক্ষকে তফশীল বর্ণিত বাড়ীটির ৩(তিন) টি কক্ষ
নি¤œরুপ ব্যবহার নিশ্চিত করবেন।

বিল্ডিং এর ফ্লোর বিবরন

রুম সংখ্যাঃ ৩ (তিন)
বাথরুম সংখ্যাঃ ০১ টি
বারান্দাঃ ০১ টি
অন্যান্য যদি থাকেঃ (এখান সঠিক ভাবে লিখতে হবে)

স্বাক্ষীগণের নাম ও ঠিকানা ১ম পক্ষের স্বাক্ষর ২য় পক্ষের স্বাক্ষর

১। নাম ঃ
ঠিকানা ঃ
তারিখ ঃ

২। নাম ঃ
ঠিকানা ঃ
তারিখ ঃ

৩। নাম ঃ
ঠিকানা ঃ
তারিখ ঃ

১। নাম ঃ
ঠিকানা ঃ
তারিখ ঃ

২। নাম ঃ
ঠিকানা ঃ
তারিখ ঃ

৩। নাম ঃ
ঠিকানা ঃ
তারিখ ঃ

——————- ১নং নমুনা চুক্তিপত্র এখানে শেষ———————–

আরও পড়ুনঃ

বাসা ভাড়ার চুক্তিনামা pdf

বাসা ভাড়ার চুক্তিনামা pdf ফরমেটে ডাউনলো করতে হলে আপকে নিচের ডাউনলোড বাটকে ক্লিক কররে ডাউনলোড করতে পারবেন। এখান থেকে উপকার হলে শেয়ার করতে ভূলবেন না।

বাড়ি ভাড়ার চুক্তিপত্র নমুনা doc

বাড়ি ভাড়ার চুক্তিপত্র নমুনা doc ফরমেটে ডাউনলো করতে হলে আপকে নিচের ডাউনলোড বাটকে ক্লিক কররে ডাউনলোড করতে পারবেন। এখান থেকে উপকার হলে শেয়ার করতে ভূলবেন না।

এবার দেখুন বাড়ি/ফ্ল্যাটের চুক্তিপত্র কিভাবে করবেন। মনে রাখকে যে কোন চুক্তিপত্রই ৩০০ টাকার স্টামে করতে হয়। ভালো হয় যদি ১০০ টাকার তিন স্টামে তিন পাতায় লেখা শেষ করেন।

ফ্ল্যাট/বাসা ভাড়ার চুক্তিপত্র নমুনা ২

প্রথম পক্ষ/বাড়ি/ফ্ল্যাটের মালিক
রহিম, পিতা: সোলাইমান, সাং-৫০/২, হাজী ওসমান গণি রোড, থানা-বাঙলাদেশ পেশা-চাকুরী, ধর্ম-ইসলাম, জাতীয়তা- বাংলাদেশী।

দ্বিতীয় পক্ষ/ভাড়াটিয়া
মোঃ মারুফা বেগম, পিতা-বশির খান, সাং-সোহানপুর, থানা-আশুরিয়া, জেলা-ব্রাক্ষণবাড়িয়া, পেশা-ব্যবসা, ধর্ম-ইসলাম, জাতীয়তা- বাংলাদেশী।

পরম করুণাময় মহান সৃষ্টিকর্তার নাম স্মরণ করিয়া অত্র ফ্ল্যাট/বাসা ভাড়ার চুক্তিপত্রের বয়ান আরম্ভ করিলাম। যেহেতু, আমি প্রথম পক্ষ নিম্ন তফসিল বর্ণিত বাড়ির মালিক ও দখলকার নিয়ত থাকিয়া ভোগ দখল করিয়া আসিতেছি।

আমি মালিক পক্ষ প্রকাশ্যে মাসিক ভাড়াটিয়া হিসাবে ভাড়া দেয়ার প্রস্তাব বা ঘোষণা করিলে  আপনি দ্বিতীয় পক্ষ উক্ত প্রস্তাবে রাজি ও সম্মত হইলে পর আমরা উভয় পক্ষ নিম্নলিখিত শর্তাধীনে অত্র ফ্ল্যাট/বাসা ভাড়ার চুক্তিপত্র সম্পাদন করিলাম।

শর্তাবলি

১. অত্র ফ্ল্যাট ভাড়ার চুক্তিপত্র অদ্য ০১/০১/২০২৩ ইং তারিখে হইতে আরম্ভ হইয়া আগামী ০১/০১২০২৫ ইং তারিখ পর্যন্ত অর্থাৎ ০২ বছরের জন্য বলবৎ থাকিবে।

২. ১ম পক্ষ চুক্তিকালীন সময়ে ২য় পক্ষের নিকট হইতে জামানত বাবদ অগ্রিম ৫,০০০/- টাকা গ্রহণ করিয়া ২য় পক্ষকে ফ্ল্যাটটির দখল বুঝাইয়া দিবেন।

৩. প্রকাশ থাকে যে, ২য় পক্ষ/ভাড়াটিয়া মেয়াদান্তে ফ্ল্যাট/বাসা ছাড়িতে মনস্থ করিলে তাহার জামানতের ৫,০০০/- টাকা প্রাপ্তি রশিদের (২য় পক্ষ তাহার প্রদানকৃত টাকা বুঝিয়া পাইয়াছে মর্মে) মাধ্যমে ১ম পক্ষ ফেরত দিতে বাধ্য থাকিবেন। অগ্রিম প্রদানকৃত টাকা হইতে ভাড়া বাবদ কোনোরুপ টাকা কর্তন হইবে না।

৪. ফ্ল্যাটের মাসিক ভাড়া ৩,০০০/- টাকা মাত্র। প্রতিমাসের ভাড়া পরবর্তী মাসের ০১ থেকে ০৭ তারিখের মধ্যে দ্বিতীয় পক্ষ ১ম পক্ষকে পরিশোধ করিবেন। ১ম পক্ষ উক্ত ভাড়া প্রাপ্ত হইয়া ২য় পক্ষকে ভাড়া প্রাপ্তির রশিদ করিবেন।

৫. অত্র ফ্ল্যাট/বাসা ভাড়ার চুক্তিপত্রের মেয়াদকালের মধ্যে ফ্ল্যাটের কোনো প্রকার ক্ষয়ক্ষতি সাধিত হইলে ফ্ল্যাট ছাড়িবার সময় ২য় পক্ষ নিজ খরচে তাহা মেরামত করিয়া দিতে বাধ্য থাকিবেন। যদি মেরামত করিয়া না দেন তবে জামানতের টাকা হইতে ১ম পক্ষ তাহার ক্ষতি পূরণ কাটিয়া রাখিয়া বাকি টাকা এককালীন ফেরত প্রদান করিতে বাধ্য থাকিবেন।

৬. ২য় পক্ষ ফ্ল্যাট/বাসার সৌন্দর্যের জন্য প্রয়োজনীয় ডেকোরেশন দরকার মনে করিলে তাহা আলোচনা সাপেক্ষে নিজ খরচে করিতে পারিবেন। ইহাতে ফ্ল্যাটের কোনো প্রকার ক্ষয়ক্ষতি সাধিত হইলে উহা ২য় পক্ষ নিজ খরচে মেরামত করিয়া দিতে বাধ্য থাকিবেন।

৭. ২য় পক্ষ ভাড়াটিয়া তফসিল বর্ণিত ফ্ল্যাটে বা বাড়িতে কোনো প্রকার অবৈধ বা অসামাজিক কার্যকলাপ করিতে পারিবেন না। অবৈধ কোনো কার্য করিলে তাহার জন্য ২য় পক্ষ দায়ী থাকিবেন এবং আইনি কোন জটিলতার সৃষ্টি হইলে ২য় পক্ষ/ভাড়াটিয়া দায়ী থাকিবেন এবং অত্র ফ্ল্যাট হইতে উচ্ছেদযোগ্য হইবেন।

৮. গ্যাস, পানি বিল ও বিদ্যুৎ বিল মালিক পক্ষ বহন করিবেন।

৯. ১ম পক্ষ বিশেষ কোনো প্রয়োজনে ০৩ মাসের নোটিশ প্রদানের মাধ্যমে ২য় পক্ষ/ভাড়াটিয়াকে উচ্ছেদ করার অধিকার সংরক্ষণ করেন এবং ২য় পক্ষ ফ্ল্যাট ছাড়িয়া দেয়ার ক্ষেত্রে একই অধিকার সংরক্ষণ করিবেন। এইক্ষেত্রে কোন পক্ষই অন্য পক্ষের কাছে কোনো প্রকার ক্ষতিপূরণ দাবি করিতে পারিবেন না।

১০. চুক্তিকালীন সময়ে যদি বাড়ির ফ্ল্যাটের কোনো কিছু (যেমন-জানালার কাচঁ, গ্রীল, বাথরুম ফিটিংস ইত্যাদি) ক্ষয় ক্ষতি হয় তাহলে ২য় পক্ষ/ভাড়াটিয়া কে নিজ খরচে ঠিক করিয়া লইতে হইবে।

১১. ২য় পক্ষ চুক্তিপত্রের মেয়াদকালে ফ্ল্যাট বা বাড়ি বর্ধিতকরণ বা সংরক্ষণ বা অন্য কাহাকেও উক্ত ফ্ল্যাট/বাড়ি ভাড়া বা সাবলেট বা উপ-ভাড়া দিতে পারিবেন না।

১২. ১ম পক্ষ/মালিক এবং ২য় পক্ষ/ভাড়াটিয়ার মধ্যে যদি ভবিষ্যতে কোনরুপ মতবিরোধ দেখা দেয়, তবে উভয় পক্ষ একত্রে বসিয়া তাহা মীমাংসা করিবেন এবং কোনোভাবে ১ম পক্ষ ও ২য় পক্ষ ৩য় পক্ষের দ্বারা বিরোধ মীমাংসা করিতে পারিবেন না। আমরা উভয় পক্ষ এই শর্ত গ্রহণ করিলাম এবং মানিয়া নিলাম।

১৩. ১ম পক্ষ যে অবস্থায় ২য় পক্ষকে ফ্ল্যাট বুঝাইয়া দিয়াছেন মেয়াদ শেষে ২য় পক্ষ ১ম পক্ষকে সেই অবস্থায় উক্ত ফ্ল্যাট বা বাড়ি হস্তান্তর করিতে বাধ্য থাকিবেন।

১৪. যেহেতু, অত্র চুক্তিপত্রের মেয়াদ মৌখিকভাবে শুরু হইয়াছে গত ০১/০১/২০২৩ ইং তারিখ হইতে কিন্তু অত্র চুক্তিপত্র লিখিতভাবে সম্পাদন করা হইল অদ্য ১৪/০১/২০২৩ ইং তারিখে।

১৫. আমরা উভয় পক্ষই দেশের প্রচলিত আইন অনুসারে এই চুক্তিতে উল্লেখ করা হয়নি এমন শর্তগুলি মেনে চলতে বাধ্য থাকবে।

বাড়ির তফসিল বর্ননা

জেলা: আপনার জেলার নাম, থানা—–, —– সিটি করপোরেশনের হোল্ডিং নং—-, ————- তলার ——- পাশের —– টি রুমসহ —– ডাইনিং স্পেসের একটি ফ্ল্যাট যাহা মাসিক ভাড়ায় ভাড়াকৃত বটে।

আমরা উভয় পক্ষ অত্র চুক্তিপত্র পড়িয়া, বুঝিয়া, মর্ম অবগত হইয়া, সুস্থ শরীরে ও মস্তিষ্কে, স্বেচ্ছায়, সজ্ঞানে, অন্য কারো  বিনা প্ররোচনায় উপস্থিত সাক্ষীগণের মোকাবেলায় অত্র চুক্তিপত্র দলিলে আমরা নিজে নিজ নিজ নাম স্বাক্ষর করিলাম।

সাক্ষীগণের স্বাক্ষর: ১ম পক্ষ/মালিকের স্বাক্ষর: ২য় পক্ষ/ভাড়াটিয়ার স্বাক্ষর:
১। ……

২। ……

৩। ……

ফ্ল্যাট/বাসা ভাড়ার চুক্তিপত্র নমুনা ২ – PDF বা Word ফাইলে ডাউনলোড করতে পারেন, কোন জামেলা ছাড়াই আপনি আমাদের এই ফাইল গুলো ব্যবহার করে একটি বাড়ি ভাড়া চুক্তিপত্র তৈরী করতে পারবেন।

আরও পড়ুনঃ

ভাড়াটিয়া চুক্তিপত্র pdf

ভাড়াটিয়া চুক্তিপত্র pdf ফাইল ডাউনলোড করতে নিচের ডাউনলোড বাটনে ক্লিক করে ডাউনলোড করে নিন।

মালিক ভাড়াটিয়া চুক্তিপত্র নমুনা

মালিক ভাড়াটিয়া চুক্তিপত্র নমুনা ফাইলটি Word ফরমেটে ডাউনলোড করতে নিচের ডাউনলোড বাটনে ক্লিক করে সহজেই ডাউনলোড করে আপনার তথ্য পরিবর্তন করে তৈরী হরে নিন একটি বাড়ী ভাড়া চুক্তিপত্র।

বাসা ভাড়ার চুক্তিনামা pdf,

আমাদের এই পোস্টের ডাউনলোড বাটকে ক্লিক করে ডাউনলোড করে নিতে পারেবেন আমাদের গুগল ড্রাইফ থেকে জামেলা ছাড়াই।

Sharing Is Caring:

Leave a Comment