কালা যাদু/জাদু বা ব্ল্যাক ম্যাজিক কি? কিভাবে কাজ করে?

কালা যাদু/জাদু বা ব্ল্যাক ম্যাজিক কি? কিভাবে কাজ করে?

কালো জাদু কি?

কালো জাদু একটি ঐতিহ্যগত ভাবে অলৌকিক শক্তি যা মন্দ/খারাব এবং স্বার্থহাছিলের উদ্দেশ্যে কালো জাদু ব্যবহার হয়ে আসছে প্রাচিনকাল থেকে। আজ আমরা আলোচনা করবো কালো জাদু বিষয় বান মারা, তাবিজ করা বা কুফরি যাদু— এই শব্দগুলি সম্বন্ধে কমবেশি আমরা প্রায় সবাই পরিচিত। এইগুলিকে এক কথায় ‘কালা যাদ বা ব্ল্যাক ম্যাজিক বলে। এগুলি বস্তুত সেই তুকতাক প্রক্রিয়া যার মাধ্যমে মানুষের ক্ষতি সাধন করা হয় এবং হয়ে আচ্ছে। সহজ করে বললে বলা কালা যাদু এক ধরনের সুপার ন্যাচারাল পাও-য়ার, যেটা খারাপ উদ্দেশ্যে অন্যের ক্ষতি করার জন্য প্রয়োগ করা হয়ে থাকে। এখন পর্যন্ত পৃথিবীতে এমন কোনো দেশ বা জাতি নেই যেখানে বা যারা কালো যাদু চর্চা  নেই বা করে না।তাই আজকের এই পোষ্টে কালা যাদু/জাদু বা ব্ল্যাক ম্যাজিক কি? কিভাবে কাজ করে?  হিন্দু ও বৌদ্ধরা বহু প্রাচীন কাল ধরেই এই কালা যাদসাহায্য নিয়ে আসছে।

বিশেস করে হিন্দু ‘তন্ত্র-সাধনায়’ মূলত কালা যাদুই চর্চা হয়ে আসছে প্রাচিন কাল থেকে।‘তন্ত্রে -উচাটন’, ‘মা-রণ’, ‘ক-রণ’, ‘বিদ্বে-ষণ’, ‘স্ত-ম্ভন’, ‘আক-র্ষণ’ (মোহন) ও ‘বশী-করণ’— এই ৬টি প্রক্রিয়াকে আভিচারিক ষট-কর্ম বা কালো যাদু বলা হয়ে থাকে বা এ গুলোই হলো ব্ল্যাক ম্যাজিক  বশীকরণের সাহায্য নেওয়াটা আজকাল আমাদের দেশে বা বর্তমান বিশ্বে তথা ইয়োরোপ ও আমেরিকার মত দেশে অনেকের কাছে খুবই প্রচলিত। বশীকরণ পুরোপুরি কালো যাদুরই একটি অংশ বটে।

কালো জাদু চর্চা?

সারা বিশ্বে কালাে যাদু/জাদুর চর্চাকারীরা  এই কাজ করে থাকে পেশাদার হিসাবে। আর সারা দুনিয়ার সকল কালা যাদুর সাহায্য নিয়ে থাকেন অধিকাংশ নারীরা, তাঁদের মধ্যে শিক্ষা দিক্ষার কোন বালাই নাই কোন প্রকার কোনও তফাৎ নেই সবাই কালা যাদুর সাহায্য নিয়ে থাকেন। তারা আগ পাছ না ভেবে কালো জাদুর ফাদে পা দিয়ে ফেলেন।

কালো জাদু মন্ত্র ঃ-

নারী বশিকরন মন্ত্র কালা যাদুঃ নিন্মক্ত বিষটি একটি কালা যাদুর মধ্যে পরে। একথায় যেখানেই মানুষের ক্ষতি হয় কিছু থাকে এবং যেখানেই ধর্ম বাইরে  কিছু থাকে সেটাকে কালা যাদু বলা হয়। অর্থাৎ কালা যাদু করা মানে ধর্ম বিরোধিতা করা। তবে এক্ষেত্রে একটি বিষয় প্রমানিত  যে কালা যাদু কখনও বিফল যায় না তবে যদি সাধ-ক/সাধি-কা এটি ঠিক মত পালন করতে পারে। এটি যেমন একজন নারীর ক্ষেত্রে প্রযোয্য তেমনি পূরুষের ক্ষেত্রেও প্রযোয্য। কিছু কাজ করে আপনাকে একটি মন্ত্র  ১০৮ বার পাঠ করে জথা স্থানে ফু মা-রবে। এভাবেই কাংখিত  সেই নারী বা পুরুষ অবশ্যই  দৃর্ব-ল  হইবে। প্রেম প্রা-থনা করিতে আ-গ্রহী হবে।

কালো জাদু শেখার উপায়?

আমাদের মধ্যে অনেক মানুষেই ভারতের কামরূপ কামাখ্যা ও তারাপীঠে যান কালো জাদু শেখার জন্য বা ভিতরে ভিতরে কালা যাদুর ভাল ওঝার বা শেখার সন্ধানে। প্রতি দিন খবরের কাগজে বা টিভিতে বিশেষ করে ভারতেই অনেক তান্ত্রিকের নামে টিভি বা পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দেখতে পাওয়া যায় । তান্ত্রি-কেরা  সবাই কালা যাদুর সাহায্য নেওয়ার লোক বা রুগী খোঁজে এই মুহূর্তে ভারতের মধ্যে কালা জাদুর পীঠস্থান হিসেবে অসমের মে-ওং বিশেষ ভাবে খ্যাতি লাভ করেছে। পৃথিবীর বহু দেশ থেকে বহু পুরুষ ও মহিলারা এখানে এসে থাকেন কালা যাদুর সাহায্য নেওয়ার জন্য। ভারতের বর্তমানকালের বেঙ্গালুরু অতীতে দক্ষিণ ভারতের কালা যাদুর পীঠস্থান হিসেবে খ্যাতি লাভ করেছিল।

কালা যাদু/জাদু বা ব্ল্যাক ম্যাজিক কি? কিভাবে কাজ করে?
কালা যাদু/জাদু বা ব্ল্যাক ম্যাজিক কি? কিভাবে কাজ করে?

Read more

নারি পুরুষ যৌনরোগের হোমিওপ্যাথি কার্যকরী চিকিৎসা

>>যৌ’ন শক্তির দুর্বলতা, >>দ্রুত বী’র্য নির্গত হওয়া, >>স্বপ্নদোষ, >>ধ্বজভঙ্গ পুরুষদের কমন যৌন রোগ।

সবসময় শোনা যায় এ সব রোগের কথা। ‘অ্যালোপ্যাথি’ চিকিৎসা শাস্ত্রে এই রোগগুলির জন্য খুব কম কার্যকর চিকিৎসা রয়েছে। তবে  ‘হোমিওপ্যাথি’ শাস্ত্রে যৌন রোগের চিকিৎসা রয়েছে যা কার্যকর এবং কোনও পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া নেই।

 

 

আজ বিভিন্ন যৌ’ন সমস্যা ও রোগের হোমিও ওষুধের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেয়া হলো। হয়তো জানা থাকলে আপনিও প্রয়োজনে সহজে সেবা নিতে পারবেন।

 সেলেনিয়াম -Selenium-

**যৌ,ন শক্তির দুর্বলতা, দ্রুত বী,র্য নির্গত হওয়া, স্বপ্নদোষ, মাথার চুল পড়ে যাওয়া ইত্যাদি সমস্যায় সেলিনিয়াম একটি ১ম সারির ঔষধ। বিশেষত যাদের কোষ্টকাঠিন্যের সমস্যা আছে, তাদের ক্ষেত্রে এটি ভালো কাজে দেয়।

ক্যালাদিয়াম সেগুইনাম -Caladium seguinum

যারা যৌ’ন মিলনে কোনও আনন্দ পান না বা যৌ’ন মিলনের পরে বী’র্যপাত হয় না বা যাদের বী’র্যপাত খুব শিথিল অথবা দ্রুত হয় বা অতিরিক্ত হস্তমৈথুন এর কারণে দুর্বল হয়ে পড়েছেন তাদের পক্ষে কার্যকর।

লাইকোপোডিয়াম ধ্বজভঙ্গের-Lycopodium clavatum

**লাইকোপোডিয়াম ধ্বজভঙ্গের জন্য একটি দুর্দান্ত ওষুধ অতিরিক্ত ধূমপানের কারণে ধ্বজভঙ্গ হয়ে গেলে আপনি এটি খেতে পারেন । লাইকোপোডিয়ামের প্রধানপ্রধান লক্ষণ হলো তাদের পেটে প্রচুর পরিমাণে গ্যাস রয়েছে , যাদের বুদ্ধি খুব ভাল তবে স্বাস্থ্য খুব খারাপ , যাদের প্রস্রাব অথবা পাকস্থলী সংক্রান্ত কোন না কোন সমস্যা থাকবে, অকাল বার্ধক্য, সকাল বেলা দুর্বলতা ইত্যাদি  ক্ষেত্রে এটি সেবন করতে পারেন।

অগ্নাস কাস্তাস -Agnus Castus

**সাধারণত গনোরিয়া রোগের পরে যৌ,ন দুর্বলতা দেখা দিলে, পুরু,ষাঙ্গ ছোট এবং নরম হয়ে গেলে, পায়খানা এবং প্রস্রাবের আগে-পরে আঠালো পদার্থ নির্গত হলে, ঘনঘন স্বপ্নদোষ হলে এটি সেবনে  এটি ভালো কাজ করে।

স্টেফিসাগ্রিয়া -Staphisagria

**এটি পুরুষদের স্টেফিসেগ্রিয়া অরিয়াসের অন্যতম সেরা ওষুধ হিসাবে বিবেচিত হয়অতিরিক্ত যৌ’ন ক্রিয়াকলাপের কারণে অতিরিক্ত হস্তমৈথুনের ফলে যাদের ধ্বজভঙ্গ হয়ে গেছে তাদের ক্ষেত্রে এটি বিশেষভাবে কর্মঠ্য। এটি যে কোনও শক্তিতে Q, 3, 6, 30, 200 ইত্যাদি খেতে পারেন; তবে শক্তি যত কম হবে তত ভাল । ৫ ফোঁটা দিনে সকালে এবং সন্ধ্যায়। বিয়ের প্রথম কয়েক দিনের মধ্যে মেয়েদের প্রস্রাব সম্পর্কিত সমস্যা থাকে, তাহলে নিরাপদে স্টেফিসেগ্রিয়া নামক ঔষধটি গ্রহণ করতে পারেন।  অথবা যৌনাঙ্গ সম্পর্কিত কোন সমস্যা হলে নিশ্চিন্তে স্টেফিসেগ্রিয়া নামক ঔষধটি খেতে পারেন। কারণ স্টেফিসেগ্রিয়া একই সাথে যৌ’নাঙ্গ সম্পর্কিত রোগে এবং আঘাতজনিত রোগে সমান ভাবে কাযর্কর।

আরও পড়ুন ঃ নিজেকে বা সঙ্গীকে যৌনরুগী বা দুর্বল ভাবেন তাহলে দেখুন।

 

Read more